advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গুরুত্ব পাবে পশ্চিমবঙ্গ ও স্মৃতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ মে ২০১৯ ০৯:৩৭
advertisement

লোকসভা নির্বাচনে দ্বিতীয়বার ব্যাপক জয়ের পর গতকাল সন্ধ্যায় নয়া মন্ত্রিসভার গঠন, প্রকৃতি নিয়ে আলোচনা করতে বৈঠকে বসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কবে প্রধানমন্ত্রী শপথগ্রহণ করবেন, সে বিষয়ে নিশ্চিত সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে এনডিটিভি জানিয়েছে, এবারের মন্ত্রিসভায় পশ্চিমবঙ্গের বিজেপির বিজয়ীয়রা এবং আমেথিতে চমক দেখানো স্মৃতি ইরানি বিশেষ গুরুত্ব পেতে পারেন। সাত দফায় ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হওয়ার পর বৃহস্পতিবার ফল ঘোষণা করা হয়।

বেসরকারি ফলে বিজেপি জোট ৩৫২টি, কংগ্রেস জোট ৯১টি এবং নির্জোটরা ৯৯টি আসনে জয় পায়। বিজেপি একাই পেয়েছে তিনশর বেশি আসন। পরপর দুবার একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে লোকসভায় যাচ্ছে মোদির দল। ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) সবচেয়ে বড় অর্জন হিসেবে দেখা হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে গেরুয়া ঝড়ের উপস্থিতির জানান দেওয়া। যেখানে ক্ষমতাসীন তৃণমূলের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলেছে পদ্মফুল।

৪২ আসনের মধ্যে তৃণমূল পেয়েছে ২২টি, বিজেপি পেয়েছে ১৮টি এবং কংগ্রেস পেয়েছে ২টি আসন। পাশাপাশি আমেথিতে স্মৃতি ইরানির জয়ও বিজেপির জন্য বড় সাফল্য। কারণ ওই আসনকে কংগ্রেসের ঘরের আসন বলা হয়। সেখানে এর আগে ত্রিশ বছরে মাত্র একবার হেরেছিল দলটি। এবার দলের সভাপ্রধান রাহুল গান্ধী আমেথি হেরে গেছেন।

এনডিটিভি বলছে, এমন সাফল্যের কারণে নতুন মন্ত্রিসভায় পশ্চিমবঙ্গ আর আমেথির জায়গা গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করতে পারেন মোদি। মন্ত্রিসভায় নয়া সদস্য আনতে প্রধানমন্ত্রী মোদি ও বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপ্রধান অমিত শাহ উদ্যোগী। পশ্চিমবঙ্গ থেকে এবারের বিজেপির টিকিকে জয়ী হয়েছে ১৮ জন, তাদের অনেকেই মন্ত্রী হতে পারেন।

স্বরাষ্ট্র, অর্থ, বিদেশ ও প্রতিরক্ষার দায়িত্বে কারা-সে বিষয়ে এখনো খোলসা করেননি মোদি কিংবা অমিত। অরুণ জেটলিকে ফের অর্থ মন্ত্রণালয়ে রাখা হবে কিনা, পিযুষ গোয়েলকে রেল এবং কয়লা মন্ত্রণালয়ে রাখা হবে কিনা-এসব নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। আমেথিতে রাহুল গান্ধীকে হারানো স্মৃতি ইরানি টেক্সটাইল মন্ত্রণালয় থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে আনা হতে পারে বলে গুঞ্জন চলছে। আমেথি থেকে তিনবারের সাংসদ ছিলেন রাহুল গান্ধী। ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে আমেথিতে রাহুলের বিরুদ্ধে দাঁড়ালেও হেরে যান ইরানি।

গতকাল তিনি টুইট করেন, ‘আমেথির জন্য নতুন সকাল, নতুন অঙ্গীকার। আপনারা উন্নয়নের পক্ষে ভরসা রেখেছেন, আমেথির প্রতি কৃতজ্ঞ।’

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের তুলনায় এবার বেশিসংখ্যক আসন নিয়ে ফের সরকার গড়তে চলেছেন মোদি। প্রথমবার শপথগ্রহণের সময় সার্ক দেশগুালোকে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল।

advertisement