advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো যাচ্ছি, তাই অনেক এক্সাইটেড : পিয়া

সাইফুল ইসলাম রিয়াদ
২৫ মে ২০১৯ ১৫:০৮ | আপডেট: ২৫ মে ২০১৯ ২১:১২
পিয়া জান্নাতুল
advertisement

ফোনের ওপাশে পিয়া জান্নাতুল। কণ্ঠে যে টান টান উত্তেজনা, তা আঁচ পাওয়া যাচ্ছে বেশ ভালোভাবেই। জনপ্রিয় মডেল এই অভিনেত্রীর এখন সবচেয়ে বড় পরিচয় তিনি একজন ‘ক্রিকেট উপস্থাপিকা’। অভিনয় জগতের বাইরে ক্রীড়ামোদিরা তাকে চেনেন অন্য নামে। বিশ্বকাপে যাচ্ছেন আপনি... এটা বলতেই কথা টেনে নিয়ে বললেন, ‘বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো যাচ্ছি, তাই অনেক এক্সাইটেড’ 

জনপ্রিয় এ ক্রিকেট উপস্থাপিকা ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও জমজমাট আসর আইসিসি ওয়ার্ল্ড কাপ-২০১৯ সরাসরি মাঠ থেকে উপস্থাপনা করবেন। তার এই উপস্থাপনা দেখা যাবে তিনটি মাধ্যমে। টেলিভিশনে দেখা যাবে ‘জিটিভি’ আর অনলাইনে ‘র‌্যাবিটহোল স্পোর্টস’ ও ‘বায়োস্কোপে’।

বাংলাদেশ থেকে এই প্রথম কেউ আন্তর্জাতিক কোনো টুর্নামেন্টে সরাসরি মাঠ থেকে উপস্থাপনা করবেন। এ নিয়ে রোমাঞ্চিত পিয়া। তিনি বলেন, ‘এই সুযোগটা যে এত তাড়াতাড়ি আসবে আমি বুঝতে পারিনি।’

এর আগে বিপিএল চলাকালীন সময়ে বলেছিলেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজেকে নিয়ে যাওয়ার কথা। বিপিএলের চার মাস না যেতেই বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে পিয়ার সুযোগটা এসেই গেল। তিনি চেয়েছিলেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ থেকে কেউ যাক।

পিয়া বলেছিলেন, ‘ক্রিকেট এমন একটা জায়গা যে মানুষ উপভোগ করছে। আমরা নিজেরাও উপভোগ করি। সো হোয়াই নট বিং দেয়ার? এবং সাথে সাথে আমি চাই, ইন্টারন্যাশনালি এখান থেকে ক্রিকেটে কেউ প্রেজেন্টার হিসেবে যায়নি, আমি চাই এটা কাভার হোক।’

তার সেই আশাও পূরণ হয়েছে। বাংলাদেশ থেকে সেই সুযোগটা প্রথম পেয়েছেন পিয়াই। এজন্য তিনি অনেক এক্সাইটেড, কেননা বাংলাদেশ থেকে পিয়ার মাধ্যমেই আইসিসি ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় এই মঞ্চে দেখা যাবে কোনো উপস্থাপিকাকে।

আগামী ২৭ মে উড়াল দেবেন ক্রিকেটের আতুরঘর ইংল্যান্ডে। এখন শুধু অপেক্ষার পালা। বিশ্বকাপ শুরুর দিন থেকেই দাপিয়ে বেড়াবেন এ মাঠ থেকে ও মাঠ, তার সঙ্গে আলোচনায় দেখা যাবে বাংলাদেশি সাবেক খেলোয়াড়দের সঙ্গে বিশ্বের তারকা ক্রিকেটারদেরও। 

এর আগে বিপিএলে পিয়া জান্নাতুলের উপস্থাপনা নিয়ে নানা সমালোচনা হয়েছিল। তার ড্রেসআপ থেকে শুরু করে সরাসরি অনুষ্ঠানে তার নানা কথা দিয়ে ট্রল হতো। তখন জিজ্ঞেস করার পর মডেলিং থেকে উপস্থাপনায় আসা পিয়া বলেছিলেন, ‘ট্রলকারীরা পিছিয়েই থাকবেন, ৫ বছর পর দেখবেন পিয়া ইন্টারন্যাশনাল প্রেজেন্টার।’

তবে পিয়ার কথা অনুযায়ী পাঁচ বছরও লাগেনি। মাত্র চার মাসের মধ্যেই দেখা পেলেন সেই স্বপ্নচূড়ার। এজন্য ট্রলকারীদের ধন্যবাদ দিয়ে পিয়া বলেন, ‘যারা ট্রল করার তারা ট্রল করে যাবে, এখন আমি ইন্টারন্যাশনালি হোস্টিং করব। আমাকে যারা ট্রল করে তাদেরকে মোস্ট ওয়েলকাম।’ তার মতে ‘সব কিছু বাদ দিয়ে যখন আমাকে নিয়ে কথা বলে, তখন আমার ভাল লাগে, অনেক ভাল লাগে।’