advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সিনিয়রদের ‘নিম্নবর্ণ’ নিয়ে বিদ্রূপে মেডিকেল শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

২৫ মে ২০১৯ ১৫:২৭
আপডেট: ২৫ মে ২০১৯ ১৫:৩০
প্রতীকী ছবি

সিনিয়রদের নিয়মিত বিদ্রূপের কারণে নিম্নবর্ণের এক নারী মেডিকেল শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ জানিয়েছে, ওই শিক্ষার্থীকে সিনিয়র তিন মেডিকেল শিক্ষার্থী ‘নিম্নবর্ণ’ নিয়ে উপহাস করতেন।

গত বুধবার রাতে ভারতের মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালের হোস্টেলে পায়েল তাদভি (২৬) নামে ওই শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেন। এ ঘটনায় অভিযুক্তদের আটক করেছে পুলিশ।

advertisement

পায়েল মুম্বাইয়ের কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালিত বি ওয়াই এল নায়ার হাসপাতালে স্ত্রীরোগবিদ্যার ওপর পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করছিলেন।

ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পায়েল নিম্নবর্গের জন্য সংরক্ষিত ক্যাটাগরিতে মেডিকেলে পড়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। এ নিয়ে ওই তিন সিনিয়র মেডিকেল শিক্ষার্থী তাকে ক্রমাগত ব্যঙ্গ–বিদ্রূপ করতেন। তারা পায়েলকে লজ্জা দিতে ওই হাসপাতালের শিক্ষার্থীদের ওয়াটসঅ্যাপ গ্রুপেও নানা মন্তব্য করতেন।

এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ হেমা আহুজা, ভক্তি মাহের ও অঙ্কিতা খান্ডেলওয়াল নামের তিনজনকে আটক করে।

মহারাষ্ট্র অ্যাসোসিয়েশনের একজন প্রতিনিধি আবাসিক ডাক্তার মার্ড বলেন, আগের দিন পায়েল দুটি অস্ত্রোপচার করেছিল। এ সময় তার মধ্যে চাপের কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। পরেই তিনি তার ঘরে চলে যান। এর প্রায়  ৩-৪ ঘণ্টা পরে দরজা খুলে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এরপর হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পুলিশকে খবর দেয়।

আগ্রিপাদা থানার পুলিশ জানিয়েছে, ওই তিনজন পায়েলের সিনিয়র ছিলেন। হয়রানির ব্যাপারে তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অভিযোগও করেছিলেন।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই তিন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণেই পায়েল আত্মহত্যা করেছেন।

তবে হাসপাতালের একজন জ্যেষ্ঠ চিকিৎসক দাবি করেছেন, তারা পায়েলের পরিবারের কাছ থেকে কোনো অভিযোগ পাননি। হয়তো পরিবারটি মৌখিক অভিযোগ করেছিল। বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখছেন বলেও জানান।