advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

এবার এনডিএ জোটের সংসদীয় নেতাও মোদি

আমাদের সময় ডেস্ক
২৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৬ মে ২০১৯ ০৯:১৬

ভারতের জাতীয় নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে আবার ক্ষমতায় এসেছে নরেন্দ্র মোদির দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ। গতকাল বিকালে দেশটির সংসদের সেন্ট্রাল হলে এক বৈঠকে এ জোটের সংসদীয় দলের নেতা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে মোদিকে। পাশাপাশি তাকে বিজেপির সংসদীয় দলেরও নেতা নির্বাচন করা হয়েছে। খবর এনডিটিভির।

এনডিএর শীর্ষনেতাদের এ বৈঠকে অনেকের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা মুরলিমনোহর জোশি এবং লালকৃষ্ণ আদবানি। এ সময় মোদিকে অভিনন্দন জানিয়ে ভাষণ দেন এনডিএর চেয়ারপারসন ও বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। একই সঙ্গে তিনি শরিক দলগুলোকেও পাশে থাকার জন্য কৃতজ্ঞতা জানান।

ভারতের স্বাধীনতার পর এই প্রথম এত বেশি ভোট পড়েছে জানিয়ে নরেন্দ্র মোদি তার বক্তব্যে বলেন, ভারতের জনগণের সংকল্পের প্রমাণ প্রতিভাত হয়েছে নির্বাচনের ফলে। এই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া, রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব। দিনের পর দিন আরও মজবুত হচ্ছে ভারতের গণতন্ত্র। ভারতবাসী যে বিপুল জনাদেশ দিয়েছে, তা আমাদের দায়িত্ব অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। বিশ্বের দরবারে ভারতকে আরও শক্তিশালী করাই আমার লক্ষ্য।

নরেন্দ্র মোদি আরও বলেন, বিরোধী দল সংখ্যালঘুদের সঙ্গে বেইমানি করেছে, যা দ্রুত বন্ধ করা দরকার। যেভাবে গরিবদের ঠকানো হয়েছে, ঠিক সেভাবে সংখ্যলঘুদেরও ঠকানো হয়েছে। তাদের শিক্ষা-স্বাস্থ্যের দিকে মনোযোগ দেওয়া উচিত ছিল। ২০১৯ সালে আমি আপনাদের (জোট নেতাদের) কাছে প্রত্যাশা করি যে, আপনারা এই প্রবঞ্চনার বিপরীতে তাদের আস্থা অর্জন করবেন।

এর আগে গতকাল সকালে এক টুইটে মোদ জানান, রবিবার সন্ধ্যায় মা হিরাবেনের আশীর্বাদ নিতে গুজরাট যাবেন তিনি। এর পরদিন সকালে তিনি কাশী যাবেন ওই ভূমির মানুষদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে। এদিকে গত শুক্রবার নরেন্দ্র মোদি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে দেখা করে তার পদত্যাগপত্র জমা দেন। রাষ্ট্রপতি তার পদত্যাগ গ্রহণ করেন এবং নতুন সরকার গঠনের আগ পর্যন্ত তাকে দায়িত্ব পালনের অনুরোধ জানান।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, ৩০ মে নরেন্দ্র মোদি দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে পারেন। তবে তা দুই-একদিন আগেও হতে পারে। শপথ নেওয়ার আগে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে নতুন সরকার গঠনের দাবি পেশ করবেন। উল্লেখ্য, সাত দফায় অনুষ্ঠিত ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনা হয় গত ২৩ মে। এদিন নির্বাচন কমিশনের দেওয়া ফল অনুযায়ী ৫৪২টি আসনের মধ্যে ৩৫১টি আসনে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট।