advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সিরাজগঞ্জে গৃহশিক্ষককে পেটানোর অভিযোগে অভিভাবক জেলে

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
২৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৬ মে ২০১৯ ০৯:৩৬
advertisement

সিরাজগঞ্জে গৃহশিক্ষককে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে অপহরণের পর আটকে রেখে বেধড়ক পিটুনির অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষার্থীর অভিভাবকের বিরুদ্ধে। শিক্ষকদের স্বজনদের অভিযোগে অপহরণের দুই ঘণ্টা পর ওই শিক্ষককে শহরের বড়গোলা পট্টির তালুকদার ডেন্টাল ক্লিনিক থেকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় ওই অভিভাবককে আটক করে পুলিশ।

শুক্রবার সন্ধ্যারাতে শহরের দরগা রোডের মেডিনোভা হাসপাতালের সামনে থেকে মো. আব্দুস সালাম নামে ওই শিক্ষককে অপহরণ করা হয় বলে পরিবারের দাবি। তিনি কামারখন্দ উপজেলার ড. সালাম জাহানারা ডিগ্রি কলেজের রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক। উদ্ধারের পর ওই শিক্ষকের স্ত্রী সালমা খাতুন সিরাজগঞ্জ সদর থানায় স্বামীকে অপহরণ ও মারধরের অভিযোগ করেন। এর পর ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিজের মেয়েকে দিয়ে যৌন হয়রানির পাল্টা অভিযোগ করান অভিযুক্ত অভিভাবক।

সালমা খাতুন জানান, তার স্বামী তালুকদার ডেন্টাল ক্লিনিকের মালিক মোস্তাক আহম্মেদ মিঠুর মেয়ের গৃহশিক্ষক। কয়েক মাসের বকেয়া টিউশন ফি পরিশোধে তাগাদা দেওয়ায় তার স্বামীকে অপহরণ ও মারপিট করে জোরপূর্বক আটকে রাখা হয়। থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর অপহরণকারীরা উল্টো তার স্বামীর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করছে। অভিযুক্ত মোস্তাক আহম্মেদ মিঠুর দাবি, তার মেয়েকে যৌন হয়রানি করায় গৃহশিক্ষককে উপযুক্ত শাস্তি দিয়েছেন তিনি। এ দিকে ঘটনায় শুক্রবার রাতে দুটি অভিযোগ সদর থানায় জমা পড়লেও তার একটিও গতকাল শনিবার সকাল পর্যন্ত রেকর্ড হয়নি।

ওই শিক্ষককে উদ্ধারকারী সদর থানার (এসআই) আলী জাহান বলেন, অভিযুক্ত মোস্তাক আহম্মেদ মিঠু একজন মাদকাসক্ত। যে কারণে এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন। পুলিশ মাদক আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা করায় আদালত তাকে কারাগারে পাঠিয়েছে