advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বাসে যাত্রীকে যৌন হয়রানি বাসচালক কারাগারে

আমাদের সময় ডেস্ক
২৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৬ মে ২০১৯ ০৯:৪২
advertisement

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় চলন্ত বাসে নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে আল আমিন নামের এক চালককে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আগৈলঝাড়া থানার ওসি আফজাল হোসেন জানান, শুক্রবার রাতে গ্রেপ্তারের পর গতকাল শনিবার আদালতের নির্দেশে তাকে কারাগারে পাঠানোর হয়। আল আমিন ঢাকা-বরিশাল রুটের গোল্ডেন লাইন পরিবহনের চালক।

এ দিকে হবিগঞ্জের বানিয়াচং, পাবনার ভাঙ্গুরা, সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ ও পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ধর্ষণ ও বলাৎকারের মামলায় এক ধর্মীয় শিক্ষকসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

বরিশাল : গত ১৮ মে আগৈলঝাড়ার পয়সারহাট থেকে গোল্ডেন লাইন পরিবহনের একটি বাসে করে ঢাকা যাচ্ছিলেন এক নারী। পথে তাকে নানাভাবে কুপ্রস্তাব দেন বাসচালক আল আমিন। ঢাকায় পৌঁছে তাকে যৌন হয়রানিও করা হয় বলে অভিযোগ করেন স্বজনরা। এ ঘটনায় ওই নারীর পরিবার শুক্রবার আগৈলঝাড়া থানায় অভিযোগ দেয়। পুলিশ রাতেই আল আমিনকে আগৈলঝাড়া থেকে গ্রেপ্তার করে। হবিগঞ্জ : বানিয়াচংয়ে প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে বিদ্যুৎ বর্মা নামে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রের বিরুদ্ধে। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। সে ওই উপজেলার উমরপুর গ্রামের বিনোদ বর্মার ছেলে। তাকে শুক্রবার কারাগারে পাঠানো হয়। সে একই উপজেলার কাদিরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র। এ দিকে ভিকটিম শিশুকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শুক্রবার রাতে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার বিকালে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে।

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) : ভাঙ্গুড়ায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ চাকরিচ্যুত সেনাসদস্য মজনু সরকারকে আটক করে পুলিশ। ওই মেয়েটি বর্তমানে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত মজনু উপজেলার পার-ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের রাঙ্গালিয়া গ্রামের নুরুজ্জামান মাস্টারের ছেলে। এ ঘটনায় মেয়ের বাবা ভাঙ্গুড়া থানায় গত শুক্রবার রাতে অভিযোগ করেন। এর পরই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মো. মাসুদ রানা জানান, কিশোরীকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। গতকাল শনিবার সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে পাবনা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) : জগন্নাথপুরে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের মামলায় গত শুক্রবার এক শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়। তার নাম বাপ্পা। তিনি কলকলিয়া ইউনিয়নের আইডিয়াল গার্লস স্কুলের (খণ্ডকালীন) সহকারী শিক্ষক। বেড়ানোর কথা বলে গত ৪ মার্চ বিদ্যালয় থেকে ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা আব্দুস সামাদের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে সামাদ ও বাপ্পা মিলে ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) নব গোপাল দাস জানান, মেয়ের বাবার দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য মেয়েটিকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

মঠবাড়িয়া : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীকে (১২) বলাৎকারের অভিযোগে আলমগীর হোসেন (২৫) নামের গণশিক্ষা কার্যক্রমের এক ধর্মীয় শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে উপজেলার আলগী পাতাকাটা গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। আলমগীর উপজেলার ধানীসাফাই ইউনিয়নের পাতাকাটা গ্রামের মজিবর মৃধার ছেলে। তিনি ওই গ্রামে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গণশিক্ষা কার্যক্রমের মসজিদভিত্তিক ধর্মীয় শিক্ষক ও স্থানীয় একটি মসজিদে জুমার নামাজ ও তারাবির নামাজ পড়ান। মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আবদুল্লাহ জানান, নির্যাতিত শিক্ষার্থীর নানার অভিযোগের ভিত্তিতে মামলার প্রস্তুতি চলছে। আলমগীরকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) : মির্জাগঞ্জে বাক প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে ধর্ষণের মামলার প্রধান ও একমাত্র আসামি কামাল শেখকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালে মির্জাগঞ্জ থানা পুলিশ পটুয়াখালী সদর উপজেলার লোহালিয়া ইউনিয়নের কুড়িপাইকা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। মির্জাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মাসুমুর রহমান বিশ্বাস জানান, অভিযুক্তকে গতকালই জেলহাজতে পাঠানো হয়।

advertisement