advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মেঘনায় সংঘর্ষে বাল্কহেড ডুবি, লঞ্চের তলায় ফাটল

বরিশাল প্রতিনিধি
২৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ মে ২০১৯ ২৩:৫৭
advertisement

বরিশালের হিজলা উপজেলার মেঘনা নদীতে যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি যুবরাজ-৭ ও বালুবাহী বাল্কহেড এমভি সিয়ামের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটেছে। এতে লঞ্চটির তলায় ফাটল ও বালুবোঝাই বাল্কহেডটি ডুবে গেছে।

গতকাল শনিবার সকাল ৭টার দিকে হিজলার মৌলভিরহাট সংলগ্ন মেঘনা নদীর মিয়ারচর পয়েন্টে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তবে চালকের বুদ্ধিমত্তার কারণে এমভি জুবরাজ-৭ নামক লঞ্চটিতে থাকা চারশর মতো যাত্রী প্রাণে রক্ষা পায়। তাদের এমভি আওলাদ-৪ নামের অপর একটি লঞ্চে করে ঢাকার উদ্দেশে নিয়ে যাওয়া হয়।

লঞ্চের স্টাফ ও যাত্রীরা জানান, এমভি যুবরাজ-৭ পটুয়াখালী থেকে ৩০০ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে শুক্রবার বিকালে রওনা দেয়। মাঝপথে বরিশালের হিজলা সংলগ্ন মেঘনা নদীতে এসে ঝড়ের কবলে পড়ে। এ সময় অন্য একটি লঞ্চের সঙ্গে এমভি যুবরাজ-৭ কে নদীতীরে বেঁধে রাখা হয়। পরে ঝড় থামলেও ভাটার কারণে লঞ্চটি চরে আটকে যায়।

গতকাল শনিবার সকালে লঞ্চটি অন্য লঞ্চের সহায়তায় চর থেকে নামানো হয়। এর পর ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে। হিজলার মিয়ারচর সংলগ্ন মৌলভীরহাট এলাকায় এমভি সিয়াম নামে বালুবাহী একটি বাল্কহেডের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় লঞ্চটির।

নৌ-পুলিশের হিজলা ফাঁড়ির পরিদর্শক শেখ মো. বেল্লাল হোসেন বলেন, বাল্কহেডের ৮ জন লোক ছিলেন, এটি ডুবলেও তাদের জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এদিকে লঞ্চের যাত্রীরা নিরাপদে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) নৌনিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপপরিচালক ও বরিশাল বন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা সরকার মিঠু।

advertisement