advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

স্বর্ণ পাম জিতল প্যারাসাইট

২৬ মে ২০১৯ ০৩:২০
আপডেট: ২৬ মে ২০১৯ ০৯:২৮
advertisement

কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭২তম আসরে সর্বোচ্চ পুরস্কার পাম দ’র (স্বর্ণ পাম) জিতেছে ‘প্যারাসাইট’। এ ছবির জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার নির্মাতা বন জুন হো পেয়েছেন বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বড় সম্মান। তার হাতে স্বর্ণ পাম তুলে দেন ফরাসি অভিনেত্রী ক্যাথেরিন দেন্যুভ ও মেক্সিকান নির্মাতা আলেহান্দ্রো গঞ্জালেজ ইনারিতু।

এবারের আসরে মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের প্রধান ছিলেন ইনারিতু। তার নেতৃত্বে বিচারকের দায়িত্বে আরও ছিলেন আমেরিকান অভিনেত্রী এল ফ্যানিং, সেনেগালের অভিনেত্রী-নির্মাতা মায়মুনা এনদাই, মার্কিন নির্মাতা কেলি রাইকার্ড, ইতালিয়ান নারী নির্মাতা অ্যালিস রোরওয়াচার, গ্রিসের নির্মাতা ইওর্গেস লানতিমোস, পোল্যান্ডের নির্মাতা পাওয়েল পাওলিকস্কি, ফরাসি নির্মাতা রবিন ক্যাম্পিলো এবং ফরাসি গ্রাফিক ঔপন্যাসিক-নির্মাতা এনকি বিলাল। সবার উপস্থিতিতে স্বর্ণ পামসহ বিভিন্ন বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয়।

পুরস্কার বিতরণী শেষে গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে উৎসবের অফিসিয়াল সিলেকশনের অংশ লাস্ট্র স্ক্রিনিং হিসেবে দেখানো হয় অলিভিয়ে নাকাশ ও এরিক তোলেদানো পরিচালিত ‘দ্য স্পেশালস’।

গ্রাঁ প্রিঁ : কানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার গ্রাঁ প্রিঁ পেয়েছেন সেনেগালিজ বংশোদ্ভূত ফরাসি কৃষ্ণাঙ্গ নারী নির্মাতা মাতি দিওপ। ‘আটলান্টিক’ ছবিটি নির্মাণের স্বীকৃতি হিসেবে তাকে দেওয়া হলো এই সম্মান। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন মার্কিন অভিনেতা-নির্মাতা সিলভেস্টার স্ট্যালোন।

সেরা অভিনেতা : ‘পেইন অ্যান্ড গ্লোরি’ ছবিতে অনবদ্য অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেতার পুরস্কার জিতেছেন আন্তোনিও ব্যান্দেরাস। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন চীনা অভিনেত্রী জ্যাঙ জিয়ি। ছবিটি পরিচালনা করেছেন পেদ্রো আলমোদোভা।

সেরা অভিনেত্রী : এ বছর সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন এমিলি বিশাম। ‘লিটল জো’ ছবিতে দারুণ অভিনয়ের সুবাদে এই স্বীকৃতি উঠল তার হাতে। পুরস্কার তুলে দেন ফরাসি অভিনেতা রেদা কাতেব।

সেরা পরিচালক : কানের ৭২তম আসরে সেরা পরিচালকের পুরস্কার পেয়েছেন জ্যঁ-পিয়ের ও লুক। ‘ইয়াং আহমেদ’ ছবির জন্য এই স্বীকৃতি গেল দারদেন ভ্রাতৃদ্বয়ের ঘরে। পুরস্কার তুলে দেন আমেরিকান-ডেনিশ অভিনেতা ভিগো মর্টেনসেন।

সেরা চিত্রনাট্যকার : ‘পোর্ট্রেট অব অ্যা লেডি অন ফায়ার’ ছবির জন্য সেরা চিত্রনাট্যকারের পুরস্কার জিতেছেন সেলিন সিয়ামা। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন মেক্সিকান অভিনেতা গায়েল গার্সিয়া বার্নাল।

জুরি প্রাইজ : যৌথভাবে জুরি প্রাইজ জিতেছে লাজ লির ‘লে মিজারেবলস’ এবং ক্লেবার মেনদোনসা ফিলো ও জুলিয়ানো দোরনেলেসের ‘বাকুরাউ’। বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন আমেরিকান নির্মাতা মাইকেল মুর।

স্পেশাল মেনশন : ইলিয়া সুলেমান পরিচালিত ‘ইট মাস্ট বি হ্যাভেন’ পেয়েছে স্পেশাল মেনশন পুরস্কার। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন ফরাসি অভিনেত্রী-গায়িকা চিয়ারা মাস্ত্রোইয়ান্নি।

সোনার ক্যামেরা : কান উৎসবে পরিচালকদের প্রথম কাজের জন্য দেওয়া হয়ে থাকে ক্যামেরা দ’র। এ বছর এটি জিতেছেন বেলজিয়াম-গুয়াতেমালান নির্মাতা সিজার ডায়াজ। ‘আওয়ার মাদারস’ ছবির জন্য এই স্বীকৃতি উঠল তার হাতে। তাকে দেওয়া হয়েছে সোনা দিয়ে বানানো ক্যামেরা আদলের ট্রফি। এই বিভাগে বিচারকদের প্রধান ছিলেন কম্বোডিয়ার নির্মাতা রীতি পান। তিনিই বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেন ও পুরস্কার তুলে দেন। তার সঙ্গে ছিলেন ফরাসি অভিনেত্রী ভ্যালেরিয়া ব্রুনি-তেদেশি।

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য : এ বছর সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের পুরস্কার জিতেছে ‘দ্য ডিস্ট্যান্স বিটউইন আস অ্যান্ড দ্য স্কাই’। এটি পরিচালনা করেছেন গ্রিসের ভ্যাসিলিস কেকাটস। তাকে দেওয়া হয়েছে স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের পাম দ’র। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন স্বল্পদৈর্ঘ্য ও সিনেফঁদাসো বিভাগের বিচারকদের প্রধান ক্লেয়ার ডেনিস ও আঁ সাঁর্তে রিগার বিভাগের জুরি প্রেসিডেন্ট লেবানিজ নির্মাতা নাদিন লাবাকি। এ বিভাগে স্পেশাল মেনশন পেয়েছে নারী নির্মাতা অগাস্তিনা স্যান মার্টিনের ‘মনস্টার গড’।

এদিকে গতকাল সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় (বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ১১টা) পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে বসে কানের জমকালো সমাপনী আসর। অনুষ্ঠান শুরুর আগে লালগালিচায় আলোকচিত্রীদের সামনে দাঁড়িয়েছেন তারকারা। গত ১৪ মে কান উৎসবের ৭২তম আসরের পর্দা ওঠে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মতো সমাপনী আয়োজনের মাস্টার অব সিরিমনিস ফরাসি অভিনেতা এদুয়ার্দ বেয়া। এবারের আয়োজনের অফিসিয়াল পোস্টারে প্রয়াত ফরাসি নারী নির্মাতা আনিয়েস ভারদাকে সম্মান জানানো হয়। ১২ দিনের এই উৎসব ঘিরে নতুন সব ছবি ও নানা আয়োজনে মুখর ছিল দক্ষিণ ফরাসি উপকূলীয় শহর কান।