advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

এবার তিনি ঘোষক নন শুধুই দর্শক

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ১০:০১

বাজেট উপস্থাপনে রেকর্ড করা সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত আজ জাতীয় সংসদে বসে বাজেট শুনবেন। এ ছাড়া বাজেটোত্তর সংবাদ সম্মেলনেও উপস্থিত থাকবেন। খবর পারিবারিক সূত্রের।

আবুল মাল আবদুল মুহিত টানা ১০ বারসহ মোট ১২ বার বাজেট উপস্থাপন করে রেকর্ড করেছেন। অবশ্য ১২ বার বাজেট উপস্থাপনের রেকর্ড রয়েছে প্রয়াত অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমানেরও। তবে টানা ১০ বার বাজেট দেওয়ার রেকর্ড শুধু মুহিতেরই। ২০০৯ থেকে ২০১৯ আওয়ামী লীগ সরকারের দুই মেয়াদে টানা ১০ বছর অর্থমন্ত্রী ছিলেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। গত সংসদ নির্বাচনের আগে ঘোষণা দিয়ে অবসরে যাওয়া ৮৬ বছরের এ রাজনীতিবিদ এখন ব্যস্ত পৃথিবীর ইতিহাস নিয়ে বই লেখার কাজে। জুন মাস বাজেট মৌসুম। গত ১০ বছর এ সময় দম ফেলার অবস্থা ছিল না; এবার অবশ্য বেশ ফুরফুরে।

advertisement

তবে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেননি বাজেট থেকে। তিনি নিজে জাতীয় সংসদে গিয়ে নতুন অর্থমন্ত্রীর বাজেট উপস্থাপনা দেখবেন। সাবেক এই অর্থমন্ত্রী বলেন, কল্যাণমুখী বাজেটের দর্শন থেকে সরে যাওয়া উচিত নয়। এ ছাড়া নারী ও শিশুদের প্রতি বিশেষ মনোযোগ দেওয়া উচিত বলেও মনে করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সময় আবুল মাল আবদুল মুহিত ১৯৮২-৮৩ ও ১৯৮৩-৮৪ দুই অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন। এর পর ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মহাজোট সরকার গঠিত হলে বাজেট পেশ করতে শুরু করেন সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল মুহিত। এর পর চলতি অর্থবছরের বাজেটসহ টানা ১২ বার বাজেট পেশ করেন তিনি। আবদুল মুহিতের গত ১০ বছরের বাজেট ঘোষণায় এর আকার বেড়েছে চার গুণেরও বেশি। ২০০৯-১০ অর্থবছরে তার বাজেটের আকার ছিল এক লাখ ১০ হাজার ৫২৪ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা।

আবদুল মুহিত একজন লেখক, গবেষক, প্রশাসক, খেলোয়াড়, অর্থনীতিবিদ, ভাষাসংগ্রামী, মুক্তিযোদ্ধা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও বিশ্লেষক। পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে কর্মের পর বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, জাতিসংঘসহ গুরুত্বপূর্ণ সংস্থায়ও কাজ করেন। বিশেষ করে বাজেট প্রণয়নে বিশেষ অবদান রয়েছে তার। বাংলাদেশের বাজেট প্রণয়নে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এনেছেন। তিনি ১৯৩৪ সালের ২৫ জানুয়ারি সিলেটের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।