advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

খালেদা জিয়ার ভাঙা দাঁতের চিকিৎসা প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ০৯:৫৪
advertisement

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দাঁতের চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) ডেন্টাল বিভাগে নেওয়া হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসা শেষে কেবিন ব্লকের নির্ধারিত কক্ষে ফিরিয়ে নেওয়া হয়।

জানা গেছে, কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে গতকাল বুধবার দুপুর ১টার দিকে খালেদা জিয়াকে দাঁতের চিকিৎসার জন্য কেবিন ব্লক থেকে ডেন্টাল অনুষদের কনজারভেটিভ ডেনটিস্ট্রি অ্যান্ড এন্ডোডনটিক্স বিভাগে নেওয়া হয়েছিল। সেখানে ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মাহমুদা আক্তার তার চিকিৎসা করেন। এ সময় কনজারভেটিভ ডেনটিস্ট্রি অ্যান্ড এন্ডোডনটিক্স বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. শামসুল আলম তার সঙ্গে ছিলেন।

বিএসএমএমইউর এক চিকিৎসক জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণে একটি দাঁত ভেঙে ধারালো হয়ে যায়। এ ছাড়া তার আরও দু-একটি দাঁত ক্ষয় হয়ে ধারালো হয়ে গেছে। ফলে ধারালো দাঁতের সঙ্গে ঘষা লেগে জিহ্বায় ক্ষতের সৃষ্টি হয়। এই ধরনের সমস্যা যেন না হয় সেজন্য উনার একপাশের তিনটি এবং অপর পাশের ২টিসহ মোট ৫টি দাঁতের গ্রান্ডিং করা হয়েছে। অর্থাৎ উনার ধারালো দাঁতগুলো মিশ্রণ করে দেওয়া হয়েছে। এরপর বেলা সোয়া ২টার দিকে উনাকে হাসপাতালের কেবিন ব্লকের নির্ধারিত কক্ষে নিয়ে যাওয়া হয়।

খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা শেষে কেবিনে ফিরিয়ে নেওয়ার পর উপস্থিত সাংবাদিকদের হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. একেএম মাহবুবুল হক বলেন, খালেদা জিয়ার একটি দাঁত ভেঙে ধারালো হয়ে গিয়েছিল। এই ভাঙা দাঁতের আঘাত লেগে জিহ্বায় একটা ঘার মতো হয়েছিল। এসব কারণে কয়েকদিন ধরে মুখে ব্যথা অনুভব করছিলেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে তিনি বলেন, বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা আগের তুলনায় অনেক ভালো। ডায়াবেটিস আগের নিয়ন্ত্রণে, নিয়মিত ইনসুলিন দেওয়া হচ্ছে। গত ২৫ মার্চ খালেদা জিয়াকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়। তিনি আর্থ্রাইটিস ও ডায়াবেটিসের সমস্যাসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছেন। খালেদা জিয়ার জন্য একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়। মেডিক্যাল বোর্ডের পরামর্শমতে তাকে ডেন্টাল বিভাগে পাঠানো হয়।

advertisement