advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ইন্ধনের অভিযোগ চট্টগ্রাম ওয়াসার ডিএমডির বিরুদ্ধে

চট্টগ্রাম ব্যুরো
১৩ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ০৯:৫৬

ফটিকছড়ি উপজেলার সুন্দরপুর ইউনিয়নের বড় ছিলোনিয়া হরিণাদিঘী এলাকায় ঈদের নামাজ পড়ানোকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা সায়মনের ওপর হামলায় ইন্ধনের অভিযোগ উঠেছে চট্টগ্রাম ওয়াসার উপব্যবস্থাপনা পরিচালক (প্রশাসন) গোলাম হোসেনের বিরুদ্ধে।

গতকাল বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন হামলায় আহত সায়মন।

advertisement

লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার পরিবারের সদস্য সিরাজুল ইসলাম। অবশ্য অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেছেন ওয়াসা কর্মকর্তা গোলাম হোসেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গোলাম হোসেন প্রভাব খাটিয়ে ২০ বছর ধরে হরিণাদিঘী বায়তুল নুর জামে মসজিদের সভাপতি পদ আঁকড়ে ধরে আছেন। অথচ মসজিদটি সামাজিক অনুদানে প্রতিষ্ঠিত। এলাকাবাসীর আপত্তিতে ওই মসজিদের সাবেক ইমাম মাওলানা শামসুদ্দিনকে পাঁচ বছর আগে চাকরিচ্যুত করা হয়।

কিন্তু গত ঈদের দিন ওই ইমামকে দিয়ে আবারও নামাজ পড়ানোর চেষ্টা করেন গোলাম হোসেন। এতে এলাকাবাসী বাধা দিলে গোলাম হোসেনের লোকজন তাদের ওপর হামলা করে। এ ঘটনায় পরবর্তী সময় স্থানীয় থানায় মামলা করা হয়। ছাত্রলীগ নেতা সায়মন বলেন, মসজিদের যে ইমামকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে তার পেছনে আমরা কয়েকজন নামাজ পড়ব না বললে আমাকে শিবির নেতা ফারুক ছুরি মারে। এতে আমি মারাত্মকভাবে আহত হই। আর পুরো ঘটনাটা ঘটনানো হয়েছে গোলাম হোসেনের ইন্ধনে।

গোলাম হোসেন বলেন, যারা অভিযোগ করছেন তারা ঈদের দিন মুসল্লিদের ওপর হামলা করেছে। এখন তারা মিথ্যা অভিযোগ করছেন। অভিযোগকারীদের আপত্তিতে ইমাম পরিবর্তন করা হয়েছে। এর পর নতুন ইমামকে তারা বের করে দিয়েছেন। হামলা করার বিষয়ে তিনি বলেন, এখানে মসজিদ-মাদ্রাসাটি তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে তারা এসব মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন হামলায় আহত মো. সায়মন, সিরাজুল ইসলাম, রাশেদউদ্দিন, মো. সাজ্জাদ, আলমনারা বেগম প্রমুখ।