advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নকশা অনুমোদনে বিধি না মানলে সিডিএ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

চট্টগ্রাম ব্যুরো
১৩ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ০৯:৫৬
advertisement

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) ইমারত নির্মাণ কমিটির তিন কর্মকর্তাকে বিধিমালা মেনে ভবন নির্মাণের অনুমোদন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। অন্যথায় তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার সিডিএতে দায়িত্বরত স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল আলম চৌধুরী এ নির্দেশনা দেন।

সিডিএর ইমারত নির্মাণ কমিটির তিন কর্মকর্তা হলেন-চেয়ারম্যান শাহীনুল ইসলাম খান, সদস্য সচিব অথরাইজেশন অফিসার-১ মো. মনজুর হাসান ও যুগ্ম সদস্য সচিব অথরাইজেশন অফিসার-২ মো. শামীম। তিন কর্মকর্তার কাছে আদালতের নির্দেশনাসহ চিঠি পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওই আদালতের পেশকার মো. ফয়েজ। তিনি বলেন, আদেশে বলা হয়েছেÑ ইমারত নির্মাণ বিধিমালা না মেনে ভবনের নকশা অনুমোদন দিলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইমারত নির্মাণ বিধিমালা, ২০০৮-এর ১২/১(সি) ধারায় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা আছে।

ইমারত নির্মাণ বিধিমালা-২০০৮ অনুযায়ী, ভবনের নকশা অনুমোদনের পাশাপাশি ভবনটি অনুমোদিত নকশা অনুযায়ী নির্মিত হচ্ছে কিনা তা তদারকির জন্য সিডিএর নিবন্ধিত প্রকৌশলী ও স্থপতিদের দায়িত্ব রয়েছে। এমনকি ভবনটি নির্মাণ শেষে সেটি কোন কাজে ব্যবহার হবে সে জন্য একটি ব্যবহারগত সনদও সিডিএ থেকে নেওয়ার বিধান রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, ভবন মালিকরা তা না নিয়েই আবাসিকে বাণিজ্যিক, হাসপাতাল, কনভেনশন সেন্টার কিংবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলছেন। ফলে দিন দিন নগরীতে বাড়ছে নকশা লঙ্ঘন করে গড়ে ওঠা ভবনের সংখ্যা।

এদিকে অনুমোদন ছাড়া ভবন নির্মাণের মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন নামঞ্জুর করে এক মালিকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তানি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। গতকাল স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এ আদেশ দেন। পরোয়ানাভুক্ত আসামি সৈয়দ জিয়াদ রহমান নগরীর দামপাড়ায় এমএম আলী সড়কে অনুমোদন ছাড়া তিনতলা একটি ভবন নির্মাণের মামলার আসামি। জিয়াদ দামপাড়ায় ম্যানোলা পাহাড়ের মালিক বলে সিডিএ সূত্র জানিয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, একতলা ভবনের অনুমোদন নিয়ে তিনতলা বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ করায় জিয়াদের বিরুদ্ধে গত ২৫ মার্চ বিশেষ আদালতে মামলা করেন সিডিএর পরিদর্শক স্বপনচন্দ্র ভৌমিক। ওই মামলায় জিয়াদ বুধবার পর্যন্ত জামিনে ছিলেন। জিয়াদ গতকাল আদালতে হাজির না হয়ে জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেন। আদালত আবেদন নামঞ্জুর করে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে।

advertisement