Paran Frooto
advertisement
Paran Frooto
advertisement
advertisement

বৃষ্টি নিয়ে আলোচনায় রোডস

ক্রীড়া ডেস্ক
১৩ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ০২:৫৫

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে রেকর্ড গড়েছে বৃষ্টি। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি যে মঙ্গলবার ব্রিস্টলে বাংলাদেশ-শ্রীলংকা ম্যাচ প- হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গেই রেকর্ড গড়ল বৃষ্টি। সোজাসুজি বলতে গেলে বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার নিরিখে নজির গড়ল দ্বাদশ বিশ্বকাপ।

এর আগে ১৯৯২ ও ২০০৩ বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ২টি করে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছিল বৃষ্টির কারণে। কিন্তু চলতি বিশ্বকাপের এখনো দুসপ্তাহ অতিক্রান্ত হয়নি, ইতোমধ্যেই ৩টি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত ঘোষণা হওয়ায় ধৈর্যের বাঁধ ভাঙছে ক্রিকেট অনুরাগীদের। বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ আসরে ‘রিজার্ভ ডে’ না থাকায় সুর চড়িয়েছেন অনুরাগীরা।

সেমিফাইনালে যোগ্যতা অর্জনের নিরিখে বৃষ্টির কারণে ভাগ হয়ে যাওয়া পয়েন্টগুলো পরে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়াবে। এবার ক্রিকেট অনুরাগীদের মতোই ‘রিজার্ভ ডে’ নিয়ে সুর চড়ালেন বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস। সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচের পর টানা দ্বিতীয় দিন বৃষ্টির কারণে বাতিল ম্যাচ। পাকিস্তান ম্যাচের পর বাংলাদেশ ম্যাচেও বৃষ্টির কারণে প্রথম ৪ ম্যাচের মধ্যে দুটি ম্যাচেই আবহাওয়ার শিকার হলেন লংকানরা।

বিলেতের জঘন্য আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে বিশ্বক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থার উচিত ছিল গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোর জন্য রিজার্ভ ডে বরাদ্দ রাখা, মনে করেন রোডস। ২টি সেমিফাইনাল ও ১৪ জুলাই ফাইনালের জন্য অতিরিক্ত দিনের ব্যবস্থা থাকলেও গ্রুপ পর্বের ম্যাচের জন্য কোনো রিজার্ভ ডে নেই বিশ্বকাপে।

এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সাবেক ইংরেজ উইকেটরক্ষক বলেন, ‘আমরা এখন চাঁদে মানুষ পাঠাচ্ছি। তা বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে কেন রিজার্ভ ডে থাকবে না। এমনিতেই যখন এটা লম্বা একটা টুর্নামেন্ট।’ রোডস বলেন, ‘আমি দায়িত্বে থাকলে অবশ্যই রিজার্ভ ডে রাখতাম। কারণ আমরা ইংল্যান্ডের এখন আবহাওয়া সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। দুর্ভাগ্যবশত বিশ্বকাপকে এখনো অনেক বৃষ্টির মোকাবিলা করতে হবে।’ একই সঙ্গে রোডসের মতে, ‘জানি টুর্নামেন্ট উদ্যোক্তাদের জন্য এটা একটা মাথাব্যথার কারণ।

রিজার্ভ ডে রাখাটা খুবই কঠিন একটা সিদ্ধান্ত।’ তবে দুটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে ভেস্তে যাওয়ার পর শ্রীলংকার দলনায়ক দিমুথ করুনারতেœও বাংলাদেশ কোচকে সমর্থন জানিয়ে রিজার্ভ ডের ব্যবস্থা রাখাটা জরুরি ছিল বলে মনে করছেন। তবে আইসিসির সাবেক সিইও বর্তমানে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সিইও ডেভ রিচার্ডসনের কথায়, ‘বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে রিজার্ভ ডে কোনো কাজ দেয় না।’

আসলে একটি ম্যাচের সঙ্গে জড়িয়ে থাকে আনুষঙ্গিক নানা বিষয়। সে কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে রিচার্ডসন জানান, ‘রিজার্ভ ডে পিচ প্রস্তুতিতে প্রভাব ফেলে। ভেন্যু অ্যাভাইলেবিলিটি নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন থাকে। রিজার্ভ ডেতে ভলান্টিয়ার ও ম্যাচ অফিসিয়ালদের পাওয়া নিয়েও নানা সমস্যা তৈরি হয়।’