advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আশা জাগিয়েও হারল পাকিস্তান

ক্রীড়া প্রতিবেদক
১৩ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ১০:৩৭

ম্যাচ জমে উঠেছিল। মাঝেমধ্যে তো পাকিস্তানের জয়ের সম্ভাবনা উঁকিও দিয়েছে! যদিও অস্ট্রেলিয়ার কাছে শেষ পর্যন্ত ৪১ রানে হারতে হয়েছে সরফরাজ আহমেদের দলকে। তবে টানটান উত্তেজনার এক ম্যাচই গতকাল উপভোগ করলেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। ৩০৭ রান তাড়ায় পাকিস্তানের ইনিংস গুটিয়ে যায় ৪৫.৪ ওভারে ২৬৬ রানে।

আগুন ঝরানো বোলিং করেছেন পাক পেসার মোহাম্মদ আমির (৫/৩০)। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় উঠে এসেছেন শীর্ষে (তিন ম্যাচে ১০ উইকেট)। তার দিনে পরাজয়ের তেতো স্বাদ পেল পাকিস্তান।

৪ ম্যাচে দ্বিতীয় হারের স্বাদ পাওয়া পাকিস্তান টেবিলের আটে। তৃতীয় জয় পাওয়া অস্ট্রেলিয়া আছে দ্বিতীয় স্থানে; শীর্ষে নিউজিল্যান্ড। টনটনের ব্যাটিংস্বর্গে শুরুতে পথ হারালেও হাসান আলি (৩২)-ওয়াহাব রিয়াজের (৪৫) ব্যাটে ম্যাচে ফেরে পাকিস্তান। এ দুই পেসার ব্যাটসম্যান বনে যান। বল-রান ব্যবধানও খুব বেশি ছিল না। তবে উইকেট না থাকায় জয় পায়নি পাকিস্তান।

ইমাম-উল-হক সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন। কামিন্স ৩ উইকেট পান। এ ছাড়া স্টার্ক ও রিচার্ডসনের শিকার ২টি। ম্যাচ ফিক্সিংয়ের রায়ে ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরেন মোহাম্মদ আমির। বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে এক বছর নিষিদ্ধ হন ডেভিড ওয়ার্নার। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এই বিশ্বকাপেই ফিরেছেন অজি ওপেনার।

পাকিস্তান ম্যাচে নিজের মনের মতোই ব্যাট করে গেছেন ওয়ার্নার। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে প্রথমবারের মতো সেঞ্চুরি পান। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা অস্ট্রেলিয়াকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন ওয়ার্নার-অ্যারন ফিঞ্চ জুটি। উদ্বোধনীতে ১৪৬ রানের জুটি গড়েন তারা। ব্যক্তিগত ৮২ রানে ফিঞ্চ আউট হলেও ওয়ার্নার সেঞ্চুরি তুলে নেন অনায়াসে। ১১১ বলে ১০৭ রানের অনবদ্য ইনিংস উপহার দেন। ৩৪ ওভারে ২ উইকেটে ২২৩ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। ৪০০ রানের স্কোর গড়ার সম্ভাবনা জাগিয়ে তুলেছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

তবে আমিরের বিধ্বংসী বোলিংয়ের সামনে এক ওভার বাকি থাকতে ৩০৭ রানেই গুটিয়ে যায় অজিদের ইনিংস। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথমবার ৫ উইকেটের স্বাদ পেয়েছেন আমির। আগে তার সেরা বোলিং ফিগার ছিল ৪/২৮। ম্যাচসেরা হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার। ১৫ জুন অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা। এরপর দিন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান।