advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তার ধর্ষণের তদন্তের দায়িত্ব পেল পিবিআই

১৩ জুন ২০১৯ ০১:১৯
আপডেট: ১৩ জুন ২০১৯ ০৯:৩৪
advertisement

রাজধানীর মতিঝিলের একটি শাখার সোনালী ব্যাংকের এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে একই অফিসের এক সহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগ পুনঃতদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গতকাল ঢাকার ৫ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম শামসুন নাহার এ আদেশ দিয়েছেন। অভিযুক্ত ওই ব্যাংক কর্মকর্তার নাম এএসএম কামরুল হাসান (৩৬)।

এর আগে মামলাটি নারী সহায়তা ও তদন্ত বিভাগের ইন্সপেক্টর মোসা. রোজিনা বেগম তদন্ত করেন। তদন্তে তিনি অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি মর্মে গত ১৬ মে আসামিকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন। ওই প্রতিবেদনের ওপর গতকাল নারাজি দাখিল করেন বাদিনী। ট্রাইব্যুনাল ওই নারাজি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, গত ৪ এপ্রিল রাজধানীর হাজারীবাগ থানায় এ মামলা করেন ভুক্তভোগী ওই নারী। মামলায় বলা হয়, একই অফিসে কর্মরত হওয়ার সুবাদে আসামির সঙ্গে বাদিনীর পরিচয় হয়। স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে জানিয়ে আসামি বাদিনীকে বিয়ে করার আশ্বাস দেয়। একপর্যায়ে ২০১৭ সালের ৭ সেপ্টেম্বর আসামি মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্কও স্থাপন করে। পরে একইভাবে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করলেও আসামি বিয়ে করতে রাজি হয়নি। পরে এ বিষয়ে অফিসে লিখিত অভিযোগ করলে বাদিনীর বিভিন্ন অন্তরঙ্গ ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয় আসামি।

advertisement