advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নিজে এসে শর্তহীন ক্ষমা চাইতে হবে মমতাকে, যাবেন না জুনিয়র ডাক্তাররা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৫ জুন ২০১৯ ১৪:২৪ | আপডেট: ১৫ জুন ২০১৯ ১৪:২৪
advertisement

পশ্চিমবঙ্গে চলমান ধর্মঘটের বিষয়ে আলোচনা করতে আন্দোলনরত জুনিয়র চিকিৎসকদেরকে দেখা করতে নিজ কার্যালয় নবান্নে ডাকেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু বৈঠকের আহ্বানে সাড়া দিলেন না চিকিৎসকরা। উল্টো তারা মুখ্যমন্ত্রীকে নিজের বক্তব্যের জন্য শর্তহীন ক্ষমা চাওয়ার পাশাপাশি ৬টি শর্ত ছুঁড়ে দিলেন প্রশাসনের কাছে। একইসঙ্গে আগামী সোমবার দেশব্যাপী ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ভারতীয় মেডিকেল  অ্যাসোসিয়েশন।

গত বৃহস্পতিবার মমতা মন্তব্য করেন, কিছু ‘বহিরাগত’ মানুষ বিঘ্ন সৃষ্টির জন্য মেডিকেল কলেজে প্রবেশ করেছে এবং এই আন্দোলন বস্তুত বিজেপির একটি ষড়যন্ত্র। আর এতেই চটেছেন আন্দোলনকারীরা। আজ রাজ্যজুড়ে বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে ৩০০ জনেরও বেশি সিনিয়র চিকিৎসক পদত্যাগ করেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, আন্দোলনরত চিকিৎসকরা শুক্রবার সাক্ষাতের জন্য না আসায় ফের আজ শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় রাজ্যের সচিবালয়ে নবান্নে তাদের সঙ্গে আবার বৈঠকে বসার ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সিনিয়র চিকিৎসক সুকুমার মুখোপাধ্যায়সহ অন্যান্য সিনিয়র চিকিৎসকদের সঙ্গে গতকাল শুক্রবার নবান্নে দীর্ঘ দুই ঘণ্টা ধরে আলোচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এরপরই মুখ্যমন্ত্রী তিন থেকে চার জন জুনিয়র চিকিৎসককে সচিবালয়ে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য মেডিকেল শিক্ষা কর্মকর্তা প্রদীপ মিত্রকে নির্দেশ দেন। তবে বৈঠকে যেতে অস্বীকার করেন চিকিৎসকরা।

জুনিয়র চিকিৎসকদের যৌথ ফোরামের একজন মুখপাত্র বলেন, ‘এটি আসলে আমাদের ঐক্য, আমাদের আন্দোলন ভেঙে ফেলার একটি চক্রান্ত। আমরা রাজ্য সচিবালয়ে কোনো রকমের কোনো বৈঠকে উপস্থিত হবো না। মুখ্যমন্ত্রীর এখানে (এনআরএস মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল) আসা উচিত এবং গতকাল এসএসকেএম হাসপাতালের তার সফরকালে তিনি আমাদের সঙ্গে যেভাবে কথা বলেছেন, সেজন্য তাকে শর্তহীন ক্ষমা চাইতেই হবে।’

সুকুমার মুখোপাধ্যায় বলেন, শুক্রবার রাতে জুনিয়র চিকিৎসকদের জন্য রাজ্য সচিবালয়ে মুখ্যমন্ত্রী অপেক্ষা করছিলেন এবং যখন চিকিৎসকরা জানালেন তারা আসবেন না তখন ফের শনিবার সন্ধ্যায় নতুন করে বৈঠকের জন্য তাদের অন্য সময় দেন মুখ্যমন্ত্রী।  তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আশা করি কিছু জুনিয়র ডাক্তাররা নিশ্চয়ই আসবেন। আমরা এই প্রতিবন্ধকতার সমাধান খুঁজে বের করার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে এসেছি।’

তিনি আরও জানান, জুনিয়র ডাক্তারদের দাবি পূরণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার যে যে পদক্ষেপ নিয়েছে সে সম্পর্কে তিনি তাদের জানিয়েছেন।

advertisement