advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

টনটনে শঙ্কা ও স্বস্তির একদিন!

মাইদুল আলম বাবু টনটন থেকে
১৬ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৬ জুন ২০১৯ ০১:৫৪
advertisement

সকাল সকাল মেঘলা দিন দেখলে কারইবা ভালো লাগে। ছিঁচকাঁদুনে বৃষ্টি তো রয়েছেই। স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দল অনুশীলনে নেমে পড়ে। স্বস্তির খবর হচ্ছে- সাকিব আল হাসান আবার অনুশীলনে ফিরেছেন। প্রথমে ফুটবল খেলেছেন। এর পর ফিল্ডিং প্র্যাকটিসেও ছিলেন প্রাণবন্ত।

নেটে ব্যাটিং করার পাশাপাশি নেট বোলারদের গ্লাভস স্বাক্ষর করে উপহারও দিয়েছেন। রোদও উজ্জ্বল হাসি উপহার দিয়েছে বেলা ১২টার পর। তবে মলিন হয়েছে এমন প্রাণবন্ত দিনে মুশফিক নেটে অনুশীলন করতে গিয়ে আঘাত পাওয়ায়। ডান হাতের কব্জিতে ব্যথা পেয়েছেন এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। ড্রেসিংরুমে গিয়ে আইসব্যাগ দিয়ে বসেছিলেন। আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে আপডেট পাওয়া যাবে অবশ্য।

এখানেই শেষ নয়; সাইফউদ্দিন নেটে ব্যাট করছিলেন। নেট বোলারের মাথায় বল আঘাত হানে। রক্তও ঝরেছে। তবে আপাতত কোনো শঙ্কা নেই। টনটনে গতকাল এমন মিশ্র প্রতিক্রিয়ার দিনই গেছে। ১৭ জুন বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশনে গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলতে হবে টাইগারদের। এই ম্যাচটির ওপরে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ-ভাগ্য নির্ভর করছে।

৫ ম্যাচ থেকে বাংলাদেশকে অন্তত ৭ পয়েন্ট পেতে হবে। আগের ৪ ম্যাচ থেকে অর্জন ৩ পয়েন্ট। বাংলাদেশ সর্বশেষ আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে। তবে এটা বিশ্বকাপ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে আন্দ্রে রাসেল যোগ হয়েছেন। ওসান থমাসও বড় পরীক্ষা হয়ে আসবেন বাংলাদেশের বিপক্ষে। শেলডন কোটরেলও ভালো বোলিং করছেন।

টনটনের মাঠটি অনেক ছোট। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা গতকাল নেটে বড় শট খেলার চেষ্টা করেছেন। এই মাঠে রান আসবে অনেক। বাংলাদেশকে সে ব্যাপারে প্রস্তুত থাকতে হবে। তামিম ইকবাল কাল সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেছেন। মাঠ নিয়ে খুব একটা চিন্তিত নন বাংলাদেশি ওপেনার। তার ভাবনার বিষয় হচ্ছে ফর্ম। মাঠ বড়-ছোট দিয়ে কোনো লাভ-ক্ষতি নেই বলে মনে করেন।

তিনি বলেন, আসলে মাঠ বড় বা ছোট দিয়ে কিছু যায় আসে না। আপনি পরিকল্পনা কাজে লাগাতে পারছেন কিনা সেটিই আসল। ছোট মাঠও বড় হয়ে যায় আবার অনেক সময় বড় মাঠ ছোট হয়ে যায়। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা বিগ হিটে খেলেন। তবে ক্রিকেটে তো শুধু ক্যাচেই উইকেট পাওয়া যায় না। আরও অন্যভাবেও আউট হয়। মাঠ নিয়ে ভাবছি না। তামিমের এ কথায় ভরসা পাওয়া যায়।

তিনি মনে করেন, জয় পেলে সব পরিস্থিতি বদলে যাবে। একটি ম্যাচ জিতলে পয়েন্ট টেবিলেও পরিবর্তন আসবে। তামিম আশাবাদী মানুষ। স্বভাবতই বাংলাদেশকে আশাবাদী করবেন। মাঠে তার প্রতিফলন হলেই বাংলাদেশ খুশি।

advertisement