advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিএনপির কার্যালয়ের মূল ফটকে ছাত্রদলের বয়স্ক নেতাদের অবস্থান  

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৬ জুন ২০১৯ ২২:২৯ | আপডেট: ১৬ জুন ২০১৯ ২২:২৯
পুরোনো ছবি
advertisement

বয়সসীমা বাতিল করে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির বয়স্ক নেতাদের একাংশ আজ রোববারও নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি করেছেন। সকাল ১১টা থেকে দেড় ঘণ্টা কর্মসূচি করার পর তা স্থগিত করা হয়। ছাত্রদলের বিলুপ্ত ৭৩৬ কমিটির নেতাদের মধ্যে প্রায় দেড় শতাধিক নেতাকর্মী এই কর্মসূচিতে অংশ নেন।

কার্যালয়ের প্রধান ফটক জুড়ে ছাত্রদলের এসব নেতাকর্মীরা কর্মসূচি করে। এ সময় তারা ‘খালেদা জিয়া জেলে কেন সিন্ডিকেট জবাব দে, সিন্ডিকেট ছিল কোথায় ম্যাডাম যখন জেলে গেল। মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’ স্লোগান দিতে দেখা যায়।

আন্দোলনরত নেতাকর্মী ও বিএনপির একাধিক নেতা জানান, একটি বিশেষ সিন্ডিকেট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি আল মেহেদী তালুকদারকে সভাপতি ও ঢাকা মহানগর পূর্বের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম নয়নকে সাধারণ সম্পাদক বানানোর চক্রান্ত করছে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ছাত্র দিয়ে কমিটি গঠনের চিন্তা করলেও এই সিন্ডিকেট নিজেদের পছন্দের লোককে নেতা বানাতে নানাভাবে কাজ করছে। এই সিন্ডিকেটের দুইজন সদস্য তারেক রহমানের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা। 

বিলুপ্ত কমিটির সিনিয়র যুগ্মসম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, ‘আমরা মিডিয়ার মাধ্যমে আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে এই বার্তা পৌঁছে দিতে চাই, আমরা আপনার নেতৃত্বের প্রতি শতভাগ আস্থাশীল, আমাদের ত্যাগ স্বীকারকে মূল্যায়ন করে, আলোচনার মাধ্যমে সমাধান দিন। যতদিন পর্যন্ত এর সমাধান না আসবে আমাদের ধারাবাহিক কর্মসূচি চলবে।’

এর আগে গত ১১ জুন সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব অসুস্থ রুহুল কবির রিজভীকে ভেতরে রেখে বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুঁলিয়ে বাইরে বিক্ষোভ করে। ওইদিন বিএনপির সিনিয়র নেতাদের হস্তক্ষেপে ছাত্রদলের এসব নেতাকর্মীরা কর্মসূচি সাময়িকভাবে স্থগিত করে।

বিলুপ্ত কমিটির সিনিয়র সহসভাপতি এজমল হোসেন পাইলট বলেন, ‘প্রথমে ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে গঠিত সার্চ কমিটি ও পরে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে এবং তাদের সম্মানার্থে আমরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত করি। কিন্তু আমাদের দাবি পূরণে এখন পর্যন্ত কোনো অগ্রগতি নেই। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন পাইলট।’

ছাত্রদলের আন্দোলন প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির একাধিক নেতা বলেন, তারেক রহমান ছাত্রদলের কমিটি গঠনের বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত দিয়েছেন-তা সঠিক। দেশের গণমাধ্যমও তার সিদ্ধান্তকে সমর্থণ করেছে। যার কারণে বিদ্রোহীরা কারোর সমর্থন পাচ্ছে না। তবে, বিদ্রোহীদের মধ্যে যারা যোগ্য তাদের যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদলসহ অন্যান্য অঙ্গ সংগঠনে যোগ্যতা অনুযায়ি পদ দেওয়া হবে।