Paran Frooto
advertisement
advertisement

পাকিস্তানকে পাত্তাই দিল না ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক
১৭ জুন ২০১৯ ০০:৪১ | আপডেট: ১৭ জুন ২০১৯ ০১:৪৪
advertisement

বিশ্বকাপের আসরে কখনো ভারতের বিপক্ষে জেতেনি পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের মাটিতে চলতি বিশ্বকাপেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। ম্যানচেস্টারে বৃষ্টি আইনে ৮৯ রানের বিশাল ব্যবধানে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দেয় কোহলির ভারত।

১৯৯২ থেকে শুরু করে ২০১৯ বিশ্বকাপ। সাত বারের দেখায় প্রতিবারই ভারতের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে পাকিস্তান।  মধ্যে ২০০৭ বিশ্বকাপে দেখা হয়নি দুই দলেরই। সাতটি বিশ্বকাপেই ঘটেছে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি। নতুন করে কিছু ঘটেনি।

রোবববার ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে বৃষ্টি বেশি বাগড়া দিতে পারেনি। দুইবার হানা দিলেও ক্ষতি হয়নি বেশি একটা। ১০০ ওভারের জায়গায় খেলা হয়েছে ৯০ ওভার। প্রথমবার ভারতের ইনিংসের সময় বৃষ্টি আসলেও অল্পকিছুক্ষণ পরেই থেমে গেলে খাল শুরু হয় আবার। শেষ পর্যন্ত রোহিতের ১৪০ ও কোহলির মাইলফলক অর্জন করা ৭৭ রানে সুবাধে ৩৩৭ রানের বিশাল লক্ষ্য দেয় ভারত।

পাকিস্তান টার্গেটে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারিয়ে বসে। বাবর-ফাখহারের দৃঢ়চিত ব্যাটিংয়ে ম্যাচে ফেরার আভাস দিলেও বেশিদূর আগাতে পারেনি পাকিস্তান।  এই জুটি ভাঙার পরেই তাসের ঘরের মতো ভেঙে যায় পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইনআপ। দুইজনের জুটি থেকে আসে ১০৪ রান। বাবর ৪৮ ও ফাখহার ২৭ রান করে ফেরেন কুলদীপের জোড়া আঘাতে। এরপরেই এক ওভারে পান্ডিয়া তুলে নেন শোয়েব মালিক-মোহাম্মদ হাফিজকে। কুলদীপ যাদব ও হার্দিক পান্ডিয়ার জোড়া আঘাতে পাকিস্তান একবারে ছিটকে যায় ম্যাচ থেকে।

এরপর সতীর্থদের পথে হাটেন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও। তার ব্যাট থেকে আসে ১২ রান। এরপরেই ৩৫ ওভার শেষ না হতেই আসে বৃষ্টি। বৃষ্টি যতক্ষণে থামে ততক্ষণে ম্যাচ থেকে হারিয়ে ১০ ওভার। বৃষ্টি আইনে খেলা দাঁড়ায় ৪০ ওভারে। পাকিস্তানকে ৩০ বলে করতে হবে ১৩৬ রান। যা অসম্ভব।

ক্রিজে থাকা ইমাদ-শাদাব হারের ব্যবধানই কমিয়েছেন একটু। এই দুইজনের জুটি থেকে আসে ৪৭ রান। ইমাদ ৪৬ ও শাদাব ২০ রানে অপরাজিত ছিলেন। বিশ্বকাপের আসরে সপ্তমবারের মতো হারের লজ্জা নিয়ে মাঠ ছাড়ে পাকিস্তান।

ভারতের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন হার্দিক পান্ডিয়া, বিজয় শংকর ও কুলদীপ যাদব।