advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মমতার দাবি
নির্বাচনে বিজেপি বাংলাদেশ থেকে মানুষ এনেছিল

আমাদের সময় ডেস্ক
১৮ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৮ জুন ২০১৯ ০৮:৩৩
advertisement

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন, লোকসভা নির্বাচনে বাংলাদেশ থেকে মানুষ নিয়ে গিয়ে জালিয়াতির কাজে ব্যবহার করে নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন বিজেপি।

সুনির্দিষ্ট নাম-পরিচয় উল্লেখ না করলেও তিনি বিজেপির এ বিজয়ের নেপথ্যে ইভিএম জালিয়াতি ও বিদেশিদের ইন্ধন রয়েছে বলে অভিযোগ করেন। সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এবিপি আনন্দকে দেওয়া একান্ত এক সাক্ষাৎকারে মমতা এসব কথা বলেন।

সঞ্চালক সুমন চট্টোপাধ্যায়ের এক প্রশ্নের জবাবে তৃণমূলের এ নেত্রী বলেন, নির্বাচনের সময় আরএসএসের ফান্ড এসেছে বিদেশ থেকে। বাংলাদেশ থেকে ইলেকশনের সময় কারা এসেছিল মিটিং করতে? বাংলাদেশের বর্ডার থেকে অন্য ধর্মের লোক পাঠিয়েছে। কোন ধর্মের মানুষ আমি বলব না।

লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনায় ইভিএম জালিয়াতি হতে পারে-এমন আশঙ্কায় দেশটির ২৩টি রাজনৈতিক দল জোটবদ্ধ হয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়ে এসেছিল। সুপ্রিমকোর্টের দ্বারস্থ হয়ে এ সংক্রান্ত অভিযোগ দায়েরের পদক্ষেপও নিয়েছিল বিরোধীরা। তবে সর্বোচ্চ আদালত এসব অভিযোগ আমলে নেননি।

সাক্ষাৎকারে মমতা অভিযোগ করেন, দেশজুড়ে ৩০০টি আসনে এবং পশ্চিমবঙ্গে ২৩টি আসনে আগেই প্রোগ্রামিং করে রেখেছিল বিজেপি। তবে তার মধ্যেও তৃণমূল কংগ্রেস বেশি আসনে জিতে যায়। নির্বাচনের আগেই ২৩টি আসনে জয় পাবে বলে বিজেপির দাবির কথাও মনে করিয়ে দেন মমতা। নরেন্দ্র মোদি তার দল ৩০০টির বেশি আসন পাবে বলে যে ঘোষণা দিয়েছিলেন, তা-ও উল্লেখ করেন এ নেত্রী। কীভাবে এ সংখ্যা মিলে গেল-প্রশ্ন রাখেন তিনি।

মমতার অভিযোগ, বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে বিরোধ তৈরি করে দেওয়ার চেষ্টা করেছিল বিজেপি। আসামে তারা প্রচারণা চালিয়েছিল, সেখানে বাঙালিরা জিতলে রাজবংশীদের জমি কেড়ে নেবে। কুচবিহারে বাঙালিদের সঙ্গে বাংলাদেশিদের লাগিয়ে দিয়েছিল, রাজবংশীদেরও লাগিয়ে দিয়েছিল।

advertisement
Evall
advertisement