advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

লিখিত পরীক্ষার পড়াশোনা বাংলাদেশ বিষয়াবলি

মো. দিদারুল ইসলাম,পুলিশ ক্যাডারে অষ্টম,৩৭তম বিসিএস
১৯ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ জুন ২০১৯ ০১:১১
advertisement

দ্বিতীয় ভাগে রয়েছে বাংলাদেশের সংবিধান, নির্বাহী, আইন ও বিচার বিভাগ, বাংলাদেশের রাজনৈতিক দল ও জোট রাজনীতি, নির্বাচন ব্যবস্থা, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, সুশাসন ও সুশীল সমাজ, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি ও বৈদেশিক সম্পর্ক, বৈদেশিক বাণিজ্য, নারীর ক্ষমতায়ন, ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ প্রভৃতি বিষয়।

উপর্যুক্ত টপিকগুলোর মধ্যে সংবিধানে বিধৃত রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি, মৌলিক অধিকারসমূহ, আইন, বিচার ও নির্বাহী বিভাগ, নির্বাচন ব্যবস্থা, মুক্তিযুদ্ধ প্রভৃতির ওপর অধিক গুরুত্ব প্রদান করুন। কারণ এগুলো থেকেই বেশিরভাগ প্রশ্ন করা হয়ে থাকে।

নারীর ক্ষমতায়ন, এসডিজি, জোট রাজনীতি বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত বিষয়। তাই এগুলোর ওপরও স্বচ্ছ ধারণা রাখুন। উপর্যুক্ত টপিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নগুলো বাছাই করে তার একটি তালিকা তৈরি করতে পারেন। সম্ভব হলে মূল পয়েন্টগুলোর সমন্বয়ে একটি হ্যান্ডনোট তৈরি করুন। এতে পরীক্ষার সময় রিভিশন দেওয়া সহজ হবে।

ডাটা, চার্ট, উদ্ধৃতির জন্য আলাদা হ্যান্ডনোট অনুসরণ করুন। দৈনিক পত্রিকা, ইন্টারনেট ও অর্থনৈতিক সমীক্ষা প্রভৃতি থেকে ডাটা, চার্ট সংগ্রহ করতে পারেন। পরীক্ষার খাতায় যেখানে সুযোগ পাবেন, সেখানেই এগুলো ব্যবহার করবেন। ডাটা, চার্ট দিতে পারলে প্রাপ্ত নম্বর অনেকাংশে বেড়ে যায়। ছোট প্রশ্নের জন্য যদিও আলাদা করে পড়ার দরকার নেই, তবুও সাম্প্রতিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো, এসডিজি, সংবিধানের গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদ ও সংশোধনীগুলো, বাংলাদের প্রাকৃতিক সম্পদ ও প্রাকৃতিক ঐতিহ্য, ১০টি মেগা প্রজেক্ট প্রভৃতি বিষয়গুলোয় চোখ বুলিয়ে রাখতে পারেন।

বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে লিখতে হয় প্রচুর কিন্তু পূর্ণ নম্বরের জন্য সময় বরাদ্দ থাকে কম। তাই পরীক্ষার খাতায় ৪ ঘণ্টায় যাতে সম্পূর্ণ উত্তর ভালোভাবে লিখে আসতে পারা যায়, সে জন্য প্রতিদিন বাসায় বসে ১ ঘণ্টা করে দ্রুত লেখার অভ্যাস করতে পারেন। প্রতিদিন এভাবে লেখার অভ্যাস করতে পারলে আপনার লেখার মানও অনেকাংশে বেড়ে যাবে।

পরিশেষে বলতে চাই বাংলাদেশ বিষয়াবলি হলো সৃজনশীলতা ও সময় ব্যবস্থাপনার একটি পরীক্ষা। আর এ সৃজনশীলতার প্রয়োগ ঘটাতে হলে দেশ-বিদেশের তথ্য জানতে হবে প্রচুর। জানা তথ্যগুলো নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরীক্ষার খাতায় সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে পারলে এ বিষয়ে অবশ্যই ভালো নম্বর উঠবে বলে আমি বিশ্বাস করি। সবার জন্য শুভকামনা রইল।

advertisement