advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফুলপুরে অপহৃত যমজ ৩ বোন শেরপুরে উদ্ধার

ফুলপুর প্রতিনিধি
২০ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২০ জুন ২০১৯ ০৯:৪৬
advertisement

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি দক্ষিণপাড়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে গত শনিবার ভোরে অপহৃত যমজ তিন বোন পপি, সুমা ও চম্পাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে গত সোমবার বিকালে ফুলপুর উপজেলার হোসেনপুর এলাকার ছয়মাইলের মোড় থেকে পপিকে এবং গত মঙ্গলবার রাতে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার নকশী বাজারসংলগ্ন জুয়েলের বাড়ি থেকে সুমা ও চম্পাকে উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় জড়িত এক তরুণীসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ফুলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইমারত হোসেন গাজী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। জানা যায়, ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দি দক্ষিণপাড়া গ্রামের ধান ব্যবসায়ী আবদুর রহমানের যমজ তিন কন্যা আবিদা সুলতানা পপি, শাহানা সুলতানা সুমা ও রেজিয়া সুলতানা চম্পা গত শনিবার ভোরে নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। এর মধ্যে পপিকে সোমবার বিকালে উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ গত মঙ্গলবার এ ঘটনায় ফুলপুর থানায় অপহরণ মামলা রেকর্ড করা হয়। তারপর অপহরণে জড়িত সুলতান মাহমুদ সবুজ ও মাসুদ রানাকে শেরপুর থেকে এবং ঘটনার অন্যতম হোতা মোমেন মিয়া ও সুমাইয়া রাহাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের দেওয়া তথ্যমতে মঙ্গলবার মধ্যরাতে পুলিশ মুন্না এবং জুয়েলকে ঝিনাইগাতী উপজেলার নকশীবাজার এলাকা হতে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে জুয়েলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে সুমা ও চম্পাকে উদ্ধার করে ফুলপুর থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। গতকাল বুধবার আদালতের মাধ্যমে গ্রেপ্তারকৃতদের জেলহাজতে পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য, যমজ পপি, সুমা ও চম্পা ভাইটকান্দি স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী। এর আগে তারা ময়মনসিংহ নাসিরাবাদ তুহফাতুল জান্নাত মহিলা মাদরাসায় পড়াশোনা করত। সেই সুবাদে সদর উপজেলার তিলকান্দি গ্রামের সুমাইয়া রাহা, মোমেন ও মুন্নার সঙ্গে পরিচয় ও বন্ধুত্ব হয়। তারা প্রায়ই তিন বোনের বাড়িতে যাতায়াত করত। এরই সূত্র ধরে ১৫ জুন ভোরে সুমাইয়া রাহা ও মোমেনের কুপরামর্শে মুন্না ও মাসুদগং গোপনে তিন বোনকে ফুঁসলিয়ে বাড়ি থেকে বের করে। তারপর অপহরণ করে ঝিনাইগাতী উপজেলার নকশী বাজারসংলগ্ন জুয়েলের বাড়িতে নিয়ে যায়।

advertisement