advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

লাইনচ্যুত পাঁচ বগি, নিহত ৫ আহত ২৫০

আমাদের সময় ডেস্ক
২৪ জুন ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ জুন ২০১৯ ০৮:৪৫
advertisement

সিলেট থেকে ঢাকার আসার সময় সেতু ভেঙে আন্তঃনগর উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের ৫টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। এ সময় একটি বগি সেতুর নিচে খালে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন নিহত ও অন্তত ২৫০ যাত্রী আহত হয়েছেন।

নিহতদের মধ্যে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলহাজ্ব আবদুল বারীর স্ত্রী রয়েছেন। তার বয়স আনুমানিক ৫০ বছর। এছাড়া আরও চার জনের লাশ কুলাউড়া হাসপাতালে রয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পরিচয় জানা যায়নি। আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ ঘটনায় সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

গতকাল রবিবার রাত পৌনে ১২টার দিকে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল স্টেশন থেকে ২০০ মিটার দূরে কালামিয়া বাজার সংলগ্ন ব্রিজে এ দুর্ঘটনা ঘটে। কুলাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিয়াজুল তায়েফ দুটি লাশ উদ্ধারের কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, যে বগিটি নদীতে ছিটকে পড়েছে, সেখান থেকে মানুষের আর্তনাদ শুনেছেন তিনি।

ওই ট্রেনের যাত্রী জৈন্তাপুর ইমরান আহমদ ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাহেদ আহমদ জানান, বরমচাল স্টেশনসংলগ্ন একটি ব্রিজে ট্রেনটি ওঠার পর কয়েকটি বগি লাইনচ্যুত হয়। এ সময় একটি বগি খালে পড়ে যায় এবং আরেক বগি উল্টে যায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সরাইলের শাহবাজপুরে বেইলি ব্রিজ স্থাপনের কাজ চলায় সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে ভারী যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। তাই ট্রেনের ওপরই বেশি নির্ভরশীল ঢাকাগামী যাত্রীরা। তাই অতিরিক্ত যাত্রীর কারণেই বগিগুলো লাইনচ্যুত হতে পারে বলে তিনি জানান। এদিকে শ্রীমঙ্গলের স্টেশনমাস্টার জাহাঙ্গীর আলম এবং শমসেরনগরের স্টেশনমাস্টার কবির হোসেন জানান, দুর্ঘটনার কারণে সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

উদ্ধারকারী ট্রেন ঘটনাস্থলে রওনা হয়েছে। কুলাউড়া থানার ওসি উয়ারদৌস হাসান ঘটনাস্থল থেকে জানান, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস উদ্ধারকাজে যোগ দিয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। ট্রেনের অন্য যাত্রীদেরও নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।