advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজে হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৪ জুন ২০১৯ ২২:৪৪ | আপডেট: ২৪ জুন ২০১৯ ২২:৪৪
advertisement

ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) সামনে একটি মানববন্ধন সংগঠিত হয়েছে। গতকাণ রোববার এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

২১ জুন হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ারে চিকিৎসাধীন এক রোগীর মৃত্যুর পর তার স্বজনসহ বহিরাগতদের মাধ্যমে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হাসপাতালে হামলা এবং হাসপাতালের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ ছড়ানোর প্রতিবাদে এই মানববন্ধনটির আয়োজন করা হয়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ১৪ মে মো. শহীদ উল্লাহ্ নামের ৫৭ বছর বয়সী (ঠিকানা: পশ্চিম স্যোশালিয়া, রামগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর) রোগী মাল্টি অর্গাণ ফেইল্যূরসহ ভর্তি হন। চিকিৎসাকালে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তার ডায়াগনোসিস হয় ESRD on MHD with Type-I respiratory failure with Acute LVF ē Bilateral Pneumonia with unstable Angina with old CVD ē H/0- DM ē HTN হাসপাতালের পক্ষ থেকে তার চিকিৎসা জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। পাশাপাশি রোগীর ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থা সম্পর্কে হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ তার স্বজনদের প্রতিদিন নিয়মিত দুই বেলা কাউন্সেলিংসহ বারবার অবহিত করেন। কিন্তু রোগীর ছেলে কামাল শুরু থেকেই উশৃঙ্খল আচরণসহ সবার সঙ্গে অশালীন আচরণ ও হুমকি ধমকি দিয়ে আসছিলেন। সর্বশেষ তার বাবা মারা যাওয়া দুইদিন পূর্বে সে হাসপাতালের একজন লেডি অফিসারের সঙ্গে অশালীন ও আপত্তিকর আচরণ করেন এবং হাসপাতালের ‘বিল না দিয়ে রোগী নিয়ে যাব, দেখি হাসপাতাল কি করতে পারে!?’ বলে হুমকি দিয়ে যান। তার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে ১৯ জুন তেজগাঁও থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

২১ জুন মৃত্যুর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী বিল না দেওয়া হীন মানসে হাসপাতালে ত্রাস সৃষ্টিসহ শতশত বহিরাগতদের দিয়ে তান্ডব ও অরাজক পরিস্থিতি ও ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। সে ওই সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক নার্স ও কর্তৃপক্ষকে জিম্মি করে ‘বিল না দিয়ে’ রোগী নিয়ে যাওয়ার জন্য পূর্ব পরিকল্পিতভাবেই তাদের বহিরাগত লোকজনকে খবর দিয়ে রাখে এবং রোগী মারা যাবার আধা ঘণ্টার মধ্যেই শত শত লোক হাসপাতালে ভিড় করে। যদিও রোগীর বাড়ি ঢাকার বাইরে।

হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্ত্তীর নেতৃত্বে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন হাসপাতালের কর্মকর্তাগণ, মেডিকেল কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্রছাত্রীবৃন্দ।

advertisement