advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অনুমতি না পাওয়ায় র‌্যালি করতে পারেনি বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৬ জুন ২০১৯ ১৯:২৭ | আপডেট: ২৬ জুন ২০১৯ ১৯:২৭
advertisement

পুলিশের অনুমতি না থাকায় ‘নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক দিবসের’ শোভাযাত্রা করতে পারেনি বিএনপি। পরে দিবসটি উপলক্ষে আজ বুধবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন দলটির নেতাকর্মীরা।

নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক এই দিবসটি উপলক্ষে আজ বুধবার সকাল ১০টায় নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে র‌্যালি হওয়ার কথা ছিল।

এদিকে র‌্যালি করার অনুমতি না দেওয়ায় সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, ‘বিশ্বের প্রতিটি দেশে এই দিবস পালন করেছে। বিএনপি একটি বৃহত্তম রাজনৈতিক দল। কিন্তু আমাদের এই কর্মসূচি পালন করতে দিল না। বলল অনুমতি নেই। আমরা অনুমতির চিঠিও পাঠালাম। তারপরেও এটার অনুমতি দিল না আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। কারণ এই এটা প্রচারিত হলে সরকার লজ্জা পাবে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে যা ঘটছে, নিপিড়ন, নির্যাতন, উৎপীড়ন, দিনের পর দিন রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে। যারা কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি, জিএস ছিলেন কেউ পুলিশি নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই পাননি।’

রিজভী বলেন, ‘জনগণ সরকারের পক্ষে নেই, তাই এই প্রধানমন্ত্রীর সোনার পালঙ্ক আর অটুট থাকবে না। জনগণ যার সাথে না থাকে সেই ক্ষমতা দীর্ঘায়িত হতে পারে না। এইবার তার পতনের সময় এসেছে, এবার দিক থেকে দিগন্তে পতনের আওয়াজ শুরু হয়েছে। এই আওয়াজে শেখ হাসিনার সরকারের পতন অবশ্যম্ভাবী। কারণ আজকে যারা পঙ্গুত্ববরণ করেছে তাদের হাহাকারের বাতাসে পতন অবশ্যম্ভাবী।’

রিজভী অভিযোগ করেন, ‘র‌্যালি ঘিরে পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের আটক করেছে। নেতাকর্মীদের আটকের ঘটনায় তীব্র নিন্দা প্রকাশ করে অবিলম্বে আটককৃতদের মুক্তি দাবি করেন।

এ দিকে পল্টন থানা সূত্র জানিয়েছে বিএনপি অফিস এর আশপাশ থেকে আট থেকে ১০ জনকে আটক করা হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে বিএনপির দপ্তর থেকে র‌্যালির কথা জানিয়ে বলা হয়, এতে সিনিয়র নেতারা উপস্থিত থাকবেন। কিন্তু সকাল ১০টা থেকে সর্বোচ্চ নেতাদের মধ্যে ছিলেন- সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্মসচিব খাইরুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শরফত আলী সপু, সহসাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূঁইয়া জুয়েল, যুবদলের ঢাকা মহানগর উত্তরের এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুন রায় চৌধুরী প্রমুখ।