advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

২ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারেন মেসি!

স্পোর্টস ডেস্ক
৮ জুলাই ২০১৯ ১১:০৪ | আপডেট: ৮ জুলাই ২০১৯ ১৬:১৭
advertisement

ব্রাজিলের কাছে সেমিফাইনালে হেরে আর্জেন্টিনার কোপা আমেরিকার শিরোপা ঘরে তোলার স্বপ্ন শেষ হয়েছে আগেই। তবে গত শনিবার রাতে চিলির বিপক্ষে জিতে তৃতীয় স্থান অর্জন করেই বিদায় নিতে হয়ে মেসির আর্জেন্টিনাকে। কিন্তু এই ম্যাচে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন লিওনেল মেসি।

শেষ পর্যন্ত জয় পেলেও কোপা আমেরিকার খেলা নিয়ে ‘দুর্নীতির’ অভিযোগ তোলেন মেসি। তিনি বলেন, ব্রাজিলকে শিরোপা জেতাতেই কোপা আমেরিকার আয়োজকরা দুর্নীতি করছে।  এজন্যই শাস্তির মুখে পড়তে পারেন আর্জেন্টিনার এই তারকা খেলোয়াড়। নিষিদ্ধ হতে পারেন দুই বছরের জন্য।

ফক্স স্পোর্টসের প্রতিবেদন বলা হয়েছে, বিস্ফোরক মন্তব্যের কারণে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল কনফেডারেশন, কনমেবলের নিয়ম অনুযায়ী, আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারেন মেসি। এতে করে ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব এবং ২০২০ সালে ঘরের মাঠে কোপা আমেরিকা খেলাও মিস করতে পারেন আর্জেন্টাইন এই তারকা খেলোয়াড়।

চিলির সঙ্গে ম্যাচ শেষে ক্ষিপ্ত মেসি বলেছিলেন, ‘আমি মনে করি লাল কার্ড আমি ডিজার্ভ করি না, আমরা অনেক ভালো খেলাই খেলেছি। আমরা এগিয়েও ছিলাম। কিন্তু কিছুদিন আগেই (ব্রাজিলের ম্যাচের পর) বলেছিলাম এখানে ব্যাপক দুর্নীতি হচ্ছে। তারা (ব্রাজিল) চায়নি আমরা ফাইনালে খেলি, যেখানে আমরা আরও ভালো কিছুর জন্য প্রস্তুত ছিলাম।’

সবকিছু ব্রাজিলের জন্য প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে-এমন অভিযোগ করে মেসি আরও বলেন, ‘এতে কোনো সন্দেহ নেই, সবকিছুই ব্রাজিলের জন্য নির্ধারণ করে রাখা হয়েছে। আমি এই দুর্নীতির অংশ হতে চাই না এবং আমাদের হওয়া উচিতও না। আমি সবসময় সত্য কথা বলি এবং আমি সৎ। আমি মনে করি, রেফারি অতিরিক্তই করেছে। আমাদের জন্য হলুদ কার্ডই যথেষ্ট ছিল। সবকিছুতেই বাড়াবাড়ি ছিল।’

চিলির বিপক্ষে নিজের ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় লাল কার্ডটি দেখেন মেসি। এর আগে ২০০৫ সালে নিজের অভিষেক ম্যাচেই প্রথম লাল কার্ড দেখেছিলেন মেসি।

প্রসঙ্গত, এবারের কোপা আমেরিকায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ব্রাজিল। বাংলাদেশ সময় গতকাল রোববার রাত দুইটায় খেলাটি শুরু হয়। গ্যাব্রিয়েল জেসুসের দুর্দান্ত পারফরমেন্সে পেরুর সঙ্গে ৩-১ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল।