advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

১১ বছর ধরে শিকলবন্দী জীবন মুন্নার

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
১১ জুলাই ২০১৯ ২১:৩৫ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯ ০০:৩৪
advertisement

১১ বছর ধরে খুঁটির সঙ্গে শিকলবন্দী জীবন কাটাচ্ছে মনোয়ারুল ইসলাম মুন্না (১৮)। মানসিক ভারসাম্যহীন এই তরুণকে আটকে রেখেছে তার পরিবার।

মুন্নার বাড়ি ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার জাবরহাট গ্রামে। তার মা মনোয়ারা বেগম জানান, সাত বছর বয়সে তার ছেলে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছে। অর্থের অভাবে মুন্নার উন্নত চিকিৎসা করাতে পারছে না তার পরিবার।

মুন্নার বাবা মুনসুর আলী পেশায় দিনমজুর। তিনি বলেন, ‘প্রতিদিন কাজ করে ৩০০ থেকে সাড়ে ৩০০ টাকা পাই। ১০০ টাকার ওষুধ কিনি মুন্নার। বাকি টাকা দিয়ে সংসারের খরচ চালাই।’

ছেলের পায়ে শিকল পরানোর বিষয়ে মুনসুর বলেন, ‘মুন্না হঠাৎ করে রেগে উঠে। পশু-প্রাণী ও মানুষকে মারধর করে। গ্রামবাসীরা যাতে বিরক্ত না হয় সে জন্য তার পায়ে শেকল বেঁধে নিয়ন্ত্রণ করা।’

জাবরহাট ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির বলেন, উন্নত চিকিৎসা করানো হলে মুন্না সুস্থ হতে পারে। তিনি তার চিকিৎসা সহায়তারও আশ্বাস দেন।

পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পরনা কর্মকর্তা ডা. আবু তাহের জানান, তিনি সম্প্রতি বদলি হয়ে এখানে এসেছেন। ছেলেটির খোঁজ নিয়ে তিনি তার চিকিৎসার ব্যবস্থা নেবেন।

এ বিষয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ ডাব্লিউ এম রায়হান শাহ জানান, মুন্নাকে আগামী শনিবার চিকিৎসার উদ্দেশে পাবনা মানসিক স্বাস্থ্য হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছেন। এ জন্য তিনি তার পরিবারকে নগদ ১০ হাজার টাকা দিয়েছেন।