advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

জলবায়ু জরুরি অবস্থা ঘোষণার দাবি ৭০০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের

আমাদের সময় ডেস্ক
১২ জুলাই ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯ ০০:১১
advertisement

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় এবার এক জোট হয়েছে বিশ্বের সাত সহস্রাধিক কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ ক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট তিন দফা পরিকল্পনা প্রকাশসহ বিশ্বে ‘জলবায়ু জরুরি অবস্থা’ ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন তারা। এক চিঠিতে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিরা, ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে আনা এবং ২০৫০ সালের মধ্যে তা

সর্বনিম্ন পর্যায়ে নামিয়ে আনতে তারা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এতে তারা জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে গবেষণা, দক্ষতার বিকাশ, পরিবেশগত শিক্ষার পাশাপাশি ক্যাম্পাসভিত্তিক এবং এর বাইরে মুভমেন্ট চালিয়ে যেতে অধিকতর অর্থ সংস্থানের আহ্বান জানিয়েছেন।

বার্তা সংস্থা এএফপি ও বিজনেস গ্রিন জানায়, ছয় মহাদেশের সাত সহস্রাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এক প্ল্যাটফরমে নিয়ে আসার কঠিন কাজটি করেছে ‘গ্লোবাল হায়ার এডুকেশন নেটওয়ার্ক’। একই সময়ে জলবায়ু পরিবর্তনের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করতে কার্যকর উদ্যোগ নিয়েছে মার্কিন কংগ্রেস। এর আগে গত মে মাসের শুরুতে বিশ্বে প্রথমবারের মতো জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে জরুরি অবস্থা ঘোষণার প্রস্তাব অনুমোদন দেয় ব্রিটিশ পার্লামেন্ট।

শিক্ষার্থীদের পক্ষে যে চিঠিটি প্রকাশ করা হয়েছে সেটি যৌথভাবে প্রস্তুত করেছে ‘সাসটেইনেবলি লিডারশিপ ইন এডুকেশন, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক হায়ার এডুকেশন ক্লাইমেট অ্যাকশন অর্গানাইজেশন, সেকেন্ড নেচার ও জাতিসংঘের জলবায়ুবিষয়ক যুব ও শিক্ষা জোট। ওই চিঠি গত বুধবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে মন্ত্রী পর্যায়ের এক বৈঠকে উপস্থাপন করা হয়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তন রোধে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন জাতিসংঘের পরিবেশবিষয়ক কর্মসূচির (ইউএনইপি) প্রধান ইঙ্গার অ্যান্ডারসন। তিনি বলেন, ভবিষ্যৎকে একটি আকারে নিয়ে আসতে আমরা শিক্ষা দিই। জলবায়ু ও পরিবেশের প্রতি যেসব চ্যালেঞ্জ আসছে তাতে আরও বেশি পদক্ষেপের দাবিতে সামনের সারিতে থেকে এগিয়ে আসছে যুব সমাজ, যা একটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ।

advertisement