advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রকৌশলীর গাফিলতিকেই দায়ী করছে কর্তৃপক্ষ

পুঠিয়া প্রতিনিধি
১২ জুলাই ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯ ০০:১১
advertisement

রাজশাহীতে তেলবাহী ট্রেন দুর্ঘটনার জন্য লাইন সংস্কার কাজে নিয়োজিত প্রকৌশলীর গাফিলতিকে দায়ী করেছে রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় রেলওয়ের সহকারী প্রকৌশলী আবদুর রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক খন্দকার শহীদুল ইসলাম জানিয়েছেন, সংস্কারের সময় খুলে রাখা হয়েছিল সিøপারের সঙ্গে লাইন আটকানোর ‘ডগস্পাইক’, আর সে কারণেই তেলবাহী ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়েছে। অর্থাৎ লাইন সংস্কার কাজে নিয়োজিত প্রকৌশলীর গাফিলতির কারণেই তেলবাহী ট্রেনটি দুর্ঘটনায় পড়ে। পুঠিয়ায় তেলবাহী একটি ট্রেনের নয়টি বগি লাইনচ্যুত হওয়ায় রাজশাহীর সঙ্গে সারাদেশের রেলযোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। উপজেলার বেলপুকুর ইউনিয়নের দিঘলকান্দীতে বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

তেলবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার খবর পেয়ে রাজশাহী রেলের কর্মকর্তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছান। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত লাইনচ্যুত সাতটি বগি উদ্ধার করা

সম্ভব হয়েছে। বাকি দুটি বগি উদ্ধারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এর ফলে সারাদেশের সঙ্গে রাজশাহীর রেলযোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। লাইনচ্যুত বাকি বগি দুটি উদ্ধার কাজ রাত ১০টার মধ্যে শেষ হলে ট্রেন চলাচল স্বাভিক করা সম্ভব বলে জানিয়েছে রেল কর্মকর্তারা।

এ ঘটনায় সহকারী প্রকৌশলী আবদুর রশিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এ ছাড়াও তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুনকে এই কমিটির প্রধান করা হয়েছে। কমিটিকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে খোদ রেল কর্মকর্তাদের অভিযোগÑ রেললাইন সংস্কারের নামে লুটপাট কারণে এবং সঠিক তদারকির অভাবেই একই স্থানে বারবার ট্রেন লাইনচ্যুত হচ্ছে।

উদ্ধার তৎপরতা দেখতে গতকাল দুপুরে দুর্ঘটনাস্থলে এসে পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক খন্দকার শহীদুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি, এখানে লাইন সংস্কার চলছিল। পুরাতন সিøপার পরিবর্তন করে পাথর দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু যারা সংস্কার কাজ করছেন তারা সিøপারের সঙ্গে লাইন আটকানোর কয়েকটি পিন (ডগস্পাইক) খুলে রেখেছিল। পাথর ফেলার পর সেটা ঢেকে যায়, ফলে কারও চোখে পড়েনি। তাতেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার বিকালে সারদা রেলস্টেশন পার হয়ে উপজেলার দিঘলকান্দী নামক স্থানে লাইনচ্যুত হয় তেলবাহী ট্রেনটি। এ সময় ট্রেনের ৯টি বগি লাইন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এর পর থেকে রাজশাহীর সঙ্গে সারাদেশের রেলযোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এ ব্যাপারে রেল কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যত দ্রুত সম্ভব লাইনচ্যুত বগিগুলো সরিয়ে রেল চলাচল স্বাভাবিক করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।