advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলাদেশকে সহায়তা করবে নেদারল্যান্ডস রানী ম্যাক্সিমা

নিজস্ব প্রতিবেদক
১২ জুলাই ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯ ০০:১১
advertisement

নেদারল্যান্ডস বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার সংকল্প ব্যক্ত করেছে। গতকাল সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা জানান সফররত নেদারল্যান্ডসের রানী ম্যাক্সিমা।

বৈঠকে তারা বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যেকার পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। বিশেষ করে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ এ খাতের অগ্রগতি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে

কথা বলেন। উভয়েই দুদেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে বলে আশা প্রকাশ করেন এবং এ লক্ষ্যে একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর এবং ঐতিহাসিক উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ১৯৭২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি নেদারল্যান্ডস বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়। ২০১৫ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেদারল্যান্ডস সফর দুদেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। তিনি তথ্যপ্রযুক্তি বিকাশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচি তুলে ধরেন রানীর সামনে। এ সময় ম্যাক্সিমা তথ্যপ্রযুক্তিসহ অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতির প্রশংসা করেন।

বৈঠকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ^াস, বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহিরুল হক, ডাক বিভাগের মহাপরিচালক এসএস ভদ্রসহ মন্ত্রণালয়ের পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের সঙ্গেও বৈঠক করেন নেদারল্যান্ডসের রানী। তিনি বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অগ্রগতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং ভবিষ্যতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেন। ম্যাক্সিমা জাতীয় পরিচয় সিস্টেম প্রবর্তন করে তা ডিজিটাল পেমেন্ট প্ল্যাটফর্মগুলোতে লিঙ্ক করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। একইসঙ্গে লিঙ্গ বৈষম্য হ্রাসের বিষয়ে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কৌশল প্রণয়নে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

গভর্নর রানী ম্যাক্সিমাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, মোবাইল ব্যাংকিং প্ল্যাটফর্মকে অন্তর্চালিত করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক কাজ করছে। পাশাপাশি দেশের প্রথম জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তি কৌশল (এনএফআইএস) প্রণয়ন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। বৈঠকে রানী ডিজিটাল আর্থিক সেবায় নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধির ওপর জোর দেন। এ ছাড়া আর্থিক উদ্ভাবনের বিষয়গুলোর প্রতি যতœবান হওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

গভর্নরের সঙ্গে সাক্ষাৎ

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অগ্রগতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে ভবিষ্যতে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার কথা জানিয়েছেন নেদারল্যান্ডসের রানি ম্যাক্সিমা। তিনি জাতীয় পরিচয় সিস্টেম প্রবর্তন করে তা ডিজিটাল পেমেন্ট প্ল্যাটফরমগুলোতে লিঙ্ক করার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। একই সঙ্গে লিঙ্গ বৈষম্য হ্রাসের বিষয়ে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ কৌশল প্রণয়নে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবিরের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন উদ্যোগ যেমন মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, এজেন্ট ব্যাংকিং এবং এসএমই ঋণের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে ধারণা দেওয়াসহ বাংলাদেশে আর্থিক অন্তর্ভুক্তি ও নারীর ক্ষমতায়নের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে রানিকে অবহিত করা হয়। গভর্নর ফজলে কবির রানি ম্যাক্সিমাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, মোবাইল ব্যাংকিং প্ল্যাটফরমকে অন্তর্চালিত করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক কাজ করছে। পাশাপাশি দেশের প্রথম জাতীয় আর্থিক অন্তর্ভুক্তি কৌশল (এনএফআইএস) প্রণয়ন চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে।

এ সময় রানি ম্যাক্সিমা ডিজিটাল আর্থিক সেবায় নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধির ওপর জোর দেন। এ ছাড়া তিনি আর্থিক উদ্ভাবনের বিষয়গুলোর যতœ নেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক পর্যায়ে একটি নতুন অফিস স্থাপনের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। বৈঠকে ডেপুটি গভর্নরসহ বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।