advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অবিলম্বে বাস্তবায়ন করুন

১২ জুলাই ২০১৯ ০০:০০
আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯ ০০:১৩
advertisement

নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থীরা নির্ভয়ে যাতে যে কোনো অভিযোগ জানাতে পারে, সেজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অভিযোগ বাক্স স্থাপনের পরামর্শ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ওপর যে কোনো ধরনের নির্যাতনের অভিযোগ জানতে একটি অভিযোগ বাক্স স্থাপন করা দরকার।

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত কমিটির করা ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বুলিং প্রতিরোধ নীতিমালা’র খসড়া উপস্থাপনের পর আদালত এ পরামর্শ দেন।

বুলিংসহ (উত্ত্যক্ত) যে কোনো হয়রানির অভিযোগগুলো শিক্ষার্থীরা মা-বাবা, শিক্ষক বা নিকট-আত্মীয়স্বজনের কাছে বলতে সংকোচবোধ করে। সে ক্ষেত্রে এ ধরনের বাক্স থাকলে তাদের জন্য অভিযোগ পেশ করতে সুবিধা হয়। আর ওই অভিযোগ বাক্সগুলো স্কুলের কোনো শিক্ষক খুলতে পারবেন না। শিক্ষকদের বিরুদ্ধে এখন নানা অভিযোগ আসছে। সে ক্ষেত্রে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা ওই বাক্স খুলবেন।

বলার অপেক্ষা রাখে না, দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে আদালতের এই পরামর্শ অত্যন্ত সময়োপযোগী। সম্প্রতি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় যৌন হয়রানির বিষয় সামনে এসেছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো জায়গায় যেখানে শিক্ষকরা ছাত্রছাত্রীদের নৈতিকতার শিক্ষা দেবেন, সেখানে তাদেরই কেউ কেউ কিনা নীতিনৈতিকতার ধার না ধরে ছাত্রীদের যৌন হয়রানি করছেন, ধর্ষণ করছেন। মূলত যৌন হয়রানির বিষয়ে আমাদের গাফিলতি সাহসী করে তোলে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা কিংবা আক্কাস নামের যৌন নিপীড়ক শিক্ষকদের। এসব বিষয়ে সচেতন হতে হবে এবং অবিলম্বে হাইকোর্টের পরামর্শগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। শুধু সরকার নয়, অভিভাবকদেরও সচেতন হতে হবে, রুখে দিতে হবে অনাচার। সেজন্য গড়ে তুলতে হবে সামাজিক প্রতিরোধ ।