advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বহুজাতিক কোম্পানির শেয়ার বাজারে আনার উদ্যোগ

আবু আলী
১২ জুলাই ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৯ ০০:১৪
advertisement

বহুজাতিক অনেক কোম্পানি বাংলাদেশে একচেটিয়া ব্যবসা করছে। কিন্তু পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হচ্ছে না। কিন্তু অন্য দেশে এসব কোম্পানি ঠিকই পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত। এর মধ্যে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, থাইল্যান্ড ও অন্যান্য দেশে তালিকাভুক্তির নজির রয়েছে। ২০০৯ সালে গ্রামীণফোন তালিকাভুক্ত হওয়ার পর আর কোনো বহুজাতিক কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়নি। দেশের শীর্ষ বীমা কোম্পানি মেডলাইফ অ্যালিকোও এ তালিকায় রয়েছে। ওষুধ কোম্পানির মধ্যে আছে সেভরন, নোভাডিস এবং অ্যাভিনটিস। কোনোভাবেই এদের পুঁজিবাজারে আনা যাচ্ছে না।

কিন্তু পুঁজিবাজারে এসব কোম্পানির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সম্প্রতি সরকার পুঁজিবাজারে বিদেশি কোম্পানি তালিকাভুক্তির বিষয়ে তৎপরতা শুরু করে। এক যুগেরও বেশি সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও এই কোম্পানিগুলোর শেয়ার বাজারে আনা সম্ভব হয়নি। ২০০৫ সাল থেকে বিভিন্ন সরকারের সময় এসব কোম্পানিকে অনুরোধ করা হয়েছে যেন দেশের পুঁজিবাজারে তাদের শেয়ারের কিছু অংশ অবমুক্ত করে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এখন আবার এই প্রতিষ্ঠানকে শেয়ারবাজারে আসার জন্য অনুরোধ জানানো হবে। এ বিষয়ে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আহ্বান করা হবে বলে জানা গেছে। জানা গেছে, বহুজাতিক এসব কোম্পানিতে সরকারেরও শেয়ার রয়েছে। সেই শেয়ার থেকেও কিছু শেয়ার পুঁজিবাজারে ছেড়ে দেবে সরকার। তাও সফল হয়নি, না বহুজাতিক কোম্পানির নিজস্ব শেয়ার, না সেসব কোম্পানিতে থাকা সরকারি শেয়ার।

জানা গেছে, বাংলাদেশে অন্যতম প্রধান দুই বহুজাতিক কোম্পানি ইউনিলিভার ও অ্যাভেন্টিসে সরকারের শেয়ার রয়েছে যথাক্রমে ৩৯ দশমিক ১ শতাংশ এবং ৪৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ। এই কোম্পানি দুটোকে দেশের পুঁজিবাজারে শেয়ার ছাড়ার জন্য বেশ কয়েকবার অনুরোধ করা হয়েছিল। কিন্তু তারা সেই অনুরোধে কোনোরূপ সাড়া দেয়নি।

advertisement