advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বৃষ্টিময় ঢাকায় সেই জলাবদ্ধতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ জুলাই ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জুলাই ২০১৯ ০৮:৫৯
advertisement

দিনভর থেমে থেমে বৃষ্টি। পানিতে তলিয়ে গেছে রাজধানীর বড় একটি অংশ। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন নিম্ন এলাকার মানুষ। শুক্রবার ছুটির দিন হওয়ায় রাস্তায় বড় ধরনের যানজট সৃষ্টি না হলেও দুর্ভোগ কম ছিল না। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, এ ধারায় বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে আরও দুইদিন। ফলে দুর্বল পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার এই নগরে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হওয়ার আশঙ্কা।

কেবল রাজধানী ঢাকায়ই নয়, দেশজুড়েই চলছে ভারী বর্ষণ। কোথাও কোথাও বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে ফসল-বাড়ি-ঘর। তবে রাজধানীতে গতকাল সকাল থেকে থেমে থেমে বৃষ্টি হলেও দুপুর ১২টার পর শুরু হয় মুষলধারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যানুসারে সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঢাকার সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত ৭৬ মিলিমিটার এবং দেশের সর্বোচ্চ রাঙামাটিতে, ১৯৪ মিলিমিটার। রাজধানীতে বৃষ্টি আর মিরপুর যেন অনেকটা অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত।

এর ব্যতিক্রম হয়নি গতকালও। মিরপুর-১০ নম্বর, শেওড়াপাড়া, কাজীপাড়ার মূল সড়ক রোকেয়া সরণিতে পানি জমে সৃষ্টি করে তীব্র জলজট। মূল সড়কে এক হাঁটু পানি মাড়িয়ে চলতে হচ্ছে স্থানীয়দের। মোহাম্মদপুর, রামপুরার বেশ কিছু এলাকা এবং পুরান ঢাকার পরিস্থিতিও প্রায় একই রকম। রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে থাকায় চলাচলের দুর্ভোগ বেড়েছে। ছুটির দিনও কিছু কিছু সড়কে দেখা গেছে যানজট। রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার রামচন্দ্রপুর পয়ঃনিষ্কাশনের খালের পানি বেড়ে প্লাবিত হয় আশপাশের সড়ক, এক সময় তা ঢুকে পড়ে অনেক বাসাবাড়িতেও। টানা বৃষ্টিতে প্লাবিত হয়েছে মোহাম্মদপুর এলাকার লিমিটেড-৭ নম্বর খালপাড়। একই সঙ্গে লিমিটেড-৬ নম্বর সড়কেও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে।

নবোদয় হাউজিং, আদাবর, শেখেরটেকসহ বিভিন্ন এলাকায় খালে পানি বাড়ায় তা মূল সড়কে উঠে চলাচলে বিঘণ্ন সৃষ্টি করেছে। মহাখালীর আজরতপাড়া, নাখালপাড়া, গ্রিন রোড, মালিবাগ, চৌধুরীপাড়া, ডিআইটি রোড, বাড্ডার কিছু অংশের সড়কেও সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। জলমগ্ন ছিল কারওয়ানবাজার, মগবাজার, পান্থপথ, বঙ্গভবন এলাকাও। এ ছাড়া ধানম-ি-২৭, শুক্রাবাদ, জিগাতলা, মোহাম্মদপুরের রায়েরবাজার এলাকাও চলে যায় পানির দখলে। জুরাইন, শনির আখড়াসহ আশপাশের এলাকার অবস্থা খুবই ভয়াবহ। খালের পানিতে তলিয়ে গেছে বিভিন্ন সড়ক। অপেক্ষাকৃত নিচু এলাকার বাসাবাড়িতেও ঢুকে পড়েছে নোংরা পানি।

বৃষ্টির পানিতে ভেসে যায় রাজধানীর অন্যতম ব্যস্ততম যাত্রাবাড়ী কাঁচাবাজারের বিপুল পরিমাণ পণ্য। নিউমার্কেট ও বঙ্গবাজার এলাকাও পানিতে ভাসতে দেখা গেছে। গুলিস্তান, নিমতলী, নাজিমউদ্দিন রোড, লালবাগ, আজিমপুর, পলাশী, বকশিবাজার, উর্দু রোড, শেখ সাহেব বাজার, আজিমপুর, নতুন পল্টন লাইনসহ পুরান ঢাকার অলিগলি জলাবদ্ধ হয়ে পড়ে।

ফলে একস্থান থেকে অন্যস্থানে যেতে সাধারণ মানুষকে হতে হয়েছে কাকভেজা, পোহাতে হয় নিদারুণ ভোগান্তি। জলাবদ্ধতার বাইরে ছিল না ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাও। দিনের প্রায় পুরোটা সময়ই দোয়েল চত্বর থেকে টিএসসি পর্যন্ত ডুবে ছিল পানির নিচে। এ ছাড়া শহীদুল্লাহ হল, একুশে হলের সামনের সড়কও প্লাবিত হয়েছে গতকালের বৃষ্টিতে।