advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালে বন্যা, বাড়ছে প্রাণহানির সংখ্যা

অনলাইন ডেস্ক
১৫ জুলাই ২০১৯ ১৩:৫৮ | আপডেট: ১৫ জুলাই ২০১৯ ১৪:৪৬
ভারতের আসামে ভয়াবহ বন্যায় নৌকায় করে নিরাপদ আশ্রয়ে যাচ্ছে সেখানকার অধিবাসীরা। ছবি-ইপিএ
advertisement

দক্ষিণ এশিয়ার তিন দেশ বাংলাদেশ, নেপাল ও ভারতের উত্তর-পূবাঞ্চলে প্রবল বর্ষণে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার থেকে টানা বৃষ্টি হচ্ছে এই তিন দেশে। বন্যা ও ভূমিধসে নেপালে অন্তত ৬৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে।

আজ সোমবার নেপাল পুলিশের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, বন্যায় নেপালে আহত হয়েছে অন্তত ৩৮ জন। এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন।

নেপালে নিখোঁজদের উদ্ধার অভিযানে স্থানীয় সংস্থাগুলোকে সহায়তা করার জন্য মোতায়েন করা হয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১০ হাজারের বেশি বাড়িঘর। এরইমধ্যে বিভিন্ন অঞ্চলে আটকেপড়া ১৪ হাজারের বেশি মানুষকে উদ্ধার করেছে নেপালি পুলিশ।

নেপালের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আগামী দিনগুলোতে আরো ভারি বর্ষণের আশঙ্কা রয়েছে। প্রতিদিন গড়ে অন্তত ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে জনগণকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ।

প্রবল বৃষ্টির ফলে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পেও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। পাহাড়ি এলাকায় এসব ক্যাম্পে ভূমিধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। চলতি মাসে ওই এলাকায় (কক্সবাজার) ৫৮ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বিবিসির তথ্য অনুযায়ী,এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত ভূমিধসের ঘটনায় রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরে অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত সপ্তাহেও ভূমিধসে দুটি শিশু মারাও গেছে।

এদিকে,ভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে আসামে মারা গেছেন ৬ জন ও অরুণাচল প্রদেশে মারা গেছেন ৫ জন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীন, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত ব্রহ্মপুত্র নদীর পানি উপচে পড়ছে এবং তা বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এতে ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের ৩৩টি জেলার মধ্যে ২৮টি বন্যাকবলিত হয়েছে। এসব জেলার ৩ হাজার ১৩৮টি গ্রাম ডুবে গিয়ে ২৬ লাখ ৪৬ হাজার লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

রাজ্যটিতে বন্যা ও ভূমিধসে অন্তত ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা।

গত বছর এ অঞ্চলে ঝড় ও ভূমিধসে অন্তত ১ হাজার ২০০ মানুষের প্রাণহানি হয়। ভারতের কেরালা রাজ্য এক শতাব্দীর মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয়।

advertisement