advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সুপার ওভারের উত্তেজনায় নিশামের কোচের মৃত্যু

ক্রীড়া ডেস্ক
১৮ জুলাই ২০১৯ ২১:৫৪ | আপডেট: ১৮ জুলাই ২০১৯ ২১:৫৪
advertisement

২০১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল মানুষের মনে থাকবে যুগ যুগ ধরে। ৫০ ওভারের ম্যাচের পর সুপার ওভারও টাই হওয়ায় বেশি বাউন্ডারি মারার নিয়মে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইংল্যান্ড। স্বভাবতই হতাশ হয়েছে নিউজিল্যান্ড।

শিষ্যের ব্যাটে বিশ্বজয়ের আশা নিয়ে টেলিভিশনের সামনে বসে ছিলেন কিউই অলরাউন্ডার জিমি নিশামের ছোটবেলার কোচ। কিন্তু সুপার ওভারে রুদ্ধশ্বাস লড়াই দেখতে গিয়ে প্রাণ হারান নিশামের হাইস্কুলের কোচ ডেভিড জেমস গর্ডন।

মাসখানেক আগে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন গর্ডন। কিন্তু বিশ্বকাপ ফাইনালে সুপার ওভারে শিষ্যের হাতে ছয় দেখার পর শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

গর্ডনের মেয়ে লিওনি গর্ডনের মতে, ‘সুপার ওভার চলাকালে বাবার শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। সম্ভবত নিশাম ছক্কা মারার পরই বাবা শেষবার শ্বাস নেন।’ লিওনি বলেন, ‘নিশাম সব সময় বাবার খোঁজ রাখতেন। বাবা নিশামের বাবার ভালো বন্ধু ছিলেন। বাবা নিশামের জন্য গর্বিত ছিলেন।’ নিশাম ছাড়াও লকি ফার্গুসনও গর্ডনের শিষ্য ছিলেন।

অসুস্থ থাকায় গর্ডনের সঙ্গে ছিলেন এক নার্স। তিনি জানান, ‘ফাইনালের শেষ ওভার এবং সুপার ওভারের সময় গর্ডনের শ্বাষকষ্ট দেখা দেয়। আমার মনে হয় নিশাম ছক্কা মারার পরই গর্ডন শেষবার শ্বাস নেন।’

কিউই অলরাউন্ডার নিশাম তার ছোটবেলার কোচকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। টুইটারে নিশাম লেখেন, ‘ডেভ গর্ডন, আমার হাইস্কুলের শিক্ষক, কোচ এবং বন্ধু। ক্রিকেটের প্রতি আপনার ভালোবাসা অপরিসীম। আমরা যারা আপনার কাছে খেলার সুযোগ পেয়েছি, তারা গর্বিত। এই সব কিছুর জন্য ধন্যবাদ। রেস্ট ইন পিস।’

advertisement