advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

‘ছেলেধরা’ নন তিনি, জাল কিনতে এসেছিলেন

কাজল আর্য,টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
২১ জুলাই ২০১৯ ২০:৪১ | আপডেট: ২১ জুলাই ২০১৯ ২১:০৮
advertisement

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে গণপিটুনির শিকার ব্যক্তির পরিচয় মিলেছে। তার নাম মিনু মিয়া (৩০)। পেশায় তিনি ভ্যান চালক। উপজেলার সয়াহাটে জাল কিনতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হন তিনি।

ঘটনার পর মিনু মিয়াকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতের বাড়ি ভূঞাপুর উপজেলার বন্যা কবলিত টেপিবাড়ি এলাকায়। তার বাবার নাম কোরবান আলী। আজ রোববার এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, স্থানীয় এক ছেলেকে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যাচ্ছে এমন খবর পেয়ে মিনু মিয়াকে আটক করে এলাকাবাসী। পরে তাকে আটক করে গণপিটুনি দেন তারা। অবশ্য কয়েক ব্যক্তি তাকে পিটুনি থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। অবস্থা বেগতিক হয়ে গেলে পুলিশে খবর দেন তারা। পরে পুলিশ এসে মিনু মিয়াকে উদ্ধার করে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

সেখানে মিনুর অবস্থা অবনতি হওয়ায় কর্ত্যব্যরত চিকিৎসকরা তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন।

এ ব্যাপারে কালিহাতীর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফারুকুল ইসলাম জানান, গুজবের কারণেই মিনু মিয়াকে বিক্ষুব্ধ জনতা গণপিটুনি দেয়। তিনি এখন হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে গনপিটুনির শিকার ব্যক্তিরা আসলে কে বা তাদের উদ্দেশ্য কী সেটা তদন্ত করে বের করা হবে। জনগনকে আরও সতর্ক থাকতে হবে। নিরপরাধ কেউ যেন হামলার শিকার না হন।

advertisement