advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

হংকংয়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর মুখোশধারীদের হামলা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২২ জুলাই ২০১৯ ১৩:৫১ | আপডেট: ২২ জুলাই ২০১৯ ১৩:৫১
advertisement
advertisement

হংকংয়ে চলমান অপরাধী প্রত্যর্পণ আইন বিরোধী বিক্ষোভের মাঝে গতকাল রোববার রাতে ইউয়েন লং এলাকার একটি রেলস্টেশনে একদল মুখোশধারী হামলা চালিয়েছে। হামলায় অন্তত ৪৫ জন আহত হয়েছে। এর মাঝে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

ইতিমধ্যে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই হামলার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, সাদা শার্ট এবং মুখোশ পরা হামলাকারীরা লাঠি হাতে স্টেশনে অবস্থান করা বিক্ষোভকারী এবং ট্রেনের ভেতরে যাত্রীদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় বিক্ষোভকারীরা সারা দিনের বিক্ষোভ শেষে ঘরে ফিরছিল। প্রত্যর্পণ বিরোধী বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর থেকে দেশটিতে এই প্রথম এমন সহিংসতার ঘটনা ঘটলো।

কয়েকজন আইনপ্রণেতা ঘটনাস্থলে পুলিশের দেরিতে পৌঁছানোর ব্যাপারে প্রশ্ন তুলেছেন। আইনপ্রণেতা লাম চিউক তিং জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে এক ঘন্টার বেশি সময় নিয়েছে। লাম চিউক নিজেও হামলার সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তার ধারণ করা ভিডিওই পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

আরেক আইনপ্রণেতা রে চ্যান টুইট করেছেন, 'জনসংখ্যার অনুপাতে পুলিশের সংখ্যা হংকংয়ে সারা বিশ্বের মধ্যেই সবচেয়ে বেশি। হামলার সময় তারা কোথায় ছিল?'

আজ সোমবার হংকংয়ের পুলিশ জানিয়েছে, হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। তবে তদন্ত চলমান রয়েছে।

হংকং সরকারের পক্ষ থেকেও এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে। সরকারি এক বিবৃতিতে বলা হয়, 'হংকংয়ের মতো একটি দেশ যারা আইনের শাসনে বিশ্বাস করে সেখানে এমন ঘটনা কখনোই কাম্য নয়। সরকার এই ঘটনার নিন্দা জানায় এবং এর বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া হবে'।

প্রসঙ্গত, গত প্রায় দুই মাস ধরে চীনের কাছে অপরাধী প্রত্যর্পণ আইন নিয়ে উত্তাল রয়েছে হংকং। এই আইন অনুযায়ী সন্দেহভাজন যেকোনো অপরাধীকে হংকং থেকে চীন তার নিজ ভূখণ্ডে নিয়ে বিচারের মুখোমুখি করতে পারবে। বিরোধী দল ডেমোক্রেটিক পার্টিসহ এই আইন বিরোধী আন্দোলনকারীরা মনে করে এই আইন পাস হলে হংকং এর ওপর চীনের আধিপত্য আরও অনেক বেড়ে যাবে।  

advertisement