advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অধ্যাপক ফারুকের পাশে থাকবে ঢাবি শিক্ষক সমিতি

বিশ^বিদ্যালয় প্রতিবেদক
২৪ জুলাই ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ জুলাই ২০১৯ ০২:৪৫
advertisement

পাস্তুরিত দুধ নিয়ে গবেষণা করে হয়রানির মধ্যে পড়া বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টারের সদ্য সাবেক পরিচালক অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। গতকাল মঙ্গলবার সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের ‘পাস্তুরিত তরল দুধে অ্যান্টিবায়টিকসহ মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদানের উপস্থিতি’বিষয়ক একটি বৈজ্ঞানিক গবেষণার ফল প্রকাশ করা হয়।

এর পর মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক অতিরিক্ত সচিব গবেষণা-বিশ্লেষণকে ভুল এবং অধ্যাপক ফারুকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার হুমকি দেন।

এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ’৭১ টেলিভিশনের একটি টক-শোতে অধ্যাপক ফারুকের সঙ্গে প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব যে রূঢ় ও অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন, তা অনাকাক্সিক্ষত ও শিষ্টাচারবহির্ভূত।

শিক্ষক সমিতি এ আচরণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছে, কোনো গবেষণার ফল ভুল কিনা তা পাল্টা গবেষণার মাধ্যমে প্রমাণ করতে হয়। মন্ত্রণালয় এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ না নিয়ে গবেষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার যে হুমকি দিয়েছে, তা যে কোনো গবেষকের গবেষণার স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ। এ ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন গবেষকদের গবেষণায় নিরুৎসাহিত করবে এবং তাতে জাতির প্রভূত ক্ষতি হবে। পিয়ার রিভিউড জার্নালে প্রকাশ হওয়ার আগে কোনো গবেষণার ফল সভা, সেমিনার ও সম্মেলনে প্রকাশ করা যাবে নাÑ এ ধারণাটিও সঠিক নয়।

অধ্যাপক ফারুক জনস্বার্থে গবেষণার ফল উপস্থাপন করেছেনÑ উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১৮ জুলাই শিক্ষক সমিতির কার্যকরী পরিষদের সভায় অধ্যাপক ফারুককে হেনস্তাসহ এ ধরনের অপচেষ্টার তীব্র নিন্দা জানানো হয়। যারা বিভিন্নভাবে অধ্যাপক ফারুকের পাশে দাঁড়িয়েছেন, শিক্ষক সমিতি তাদের ধন্যবাদ জানায়। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে দুধসহ অন্যান্য খাদ্যপণ্যে ক্ষতিকর উপাদান দ্রুত নিয়ন্ত্রণের জন্য শিক্ষক সমিতি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোকে আহ্বান জানিয়েছে।

advertisement