advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

চীনে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ‘লেকিমা’, নিহত ১৮

অনলাইন ডেস্ক
১০ আগস্ট ২০১৯ ২১:৫১ | আপডেট: ১০ আগস্ট ২০১৯ ২৩:১২
advertisement
advertisement

চীনে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘লেকিমা’র প্রভাবে ১৮ জন নিহত হয়েছে। এতে প্রায় ১৪ জন নিখোঁজ আছে। বিপজ্জনক এলাকা থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে ১০ লাখেরও বেশি বাসিন্দাকে। এ ছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ওয়েনঝু নামক স্থানে ভয়াবহ ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম।

বিবিসি তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আজ শনিবার সকালে চীনের উপকূলে আঘাত হানে লেকিমা। সাংহাই ও তাইওয়ানের মধ্যবর্তী অনলিং নামক স্থানে এটি আছড়ে পড়ে। প্রথমে এটিকে ‘সুপার টাইফুন’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। কিন্তু ভূমিতে আছড়ে পড়ার আগে এটি দুর্বল হয়ে পড়ে।

বিবিসি আরও জানিয়েছে, ভূমি অতিক্রম করার সময় লেকিমার বাতাসের বেগ ছিল প্রতি ঘণ্টায় ১৮৭ কিলোমিটার। এর প্রভাবে প্রচুর গাছ ভেঙে পড়েছে। এলাকাগুলো বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে। সাংহাই কর্তৃপক্ষ ঝড়ের প্রস্তুতি হিসেবে প্রায় ১ হাজার ফ্লাইট বাতিল করেছে ও শহরের ট্রেন সেবা স্থগিত করেছে।

এলাকাটি থেকে প্রায় আড়াই লাখ লোককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আর সেসাং থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে প্রায় ৮ লাখ বাসিন্দাকে। নিংবো শহরের ফায়ার সার্ভিসের প্রধান ফু সংইয়াং জানান, এই অঞ্চল অপেক্ষাকৃত নিচু। তাই পাহাড়ি ঢলের কারণে এসব এলাকায় ব্যাপক বন্যা ও ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা আছে।

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সিনহুয়া বলছে, চীনে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড়গুলোর মধ্যে লেকিমাই সবচেয়ে শক্তিশালী। এটির জন্য চীন সর্বোচ্চ সতর্কতাসংকেত জারি করেছিল। তবে পরে তা কমিয়ে আনা হয়।

বর্তমানে চীনের উত্তর সেসাং প্রদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে লেকিমা। এটি এখন সাংহাইয়ে আঘাত করতে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা স্থানীয় কর্তৃপক্ষের। ঘূর্ণিঝড়টির কারণে ব্যাপক বন্যার আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।

advertisement