advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

চামড়া নিয়ে কারসাজি করছে আ.লীগ : রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৩ আগস্ট ২০১৯ ১৬:১৩ | আপডেট: ১৩ আগস্ট ২০১৯ ১৭:১৩
advertisement

বেশ কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগের সিন্ডিকেট চামড়া নিয়ে কারসাজি করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, সব জিনিসের দাম বাড়লেও গরিব-মিসকিনের হক কাঁচা চামড়ার দাম দশ ভাগের এক ভাগে নেমে এসেছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমার অজুহাতে অনির্বাচিত আওয়ামী লীগের সিন্ডিকেট চামড়া নিয়ে এ কারসাজি করছে বেশ কয়েক বছর ধরে। এই চক্রের স্বার্থ রক্ষা করছে নিশুতি সরকার। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চামড়ার বর্গফুট প্রতি একটা হাস্যকর দাম বেধে দিয়ে তাদেরকে সহায়তা করছে। এই অল্প দামের কারণে চামড়া ব্যাপকভাবে পাচার হচ্ছে পাশ্ববর্তী দেশে।’

‘সিন্ডিকেট করে এতিমের হক মারার এ কাণ্ডকারখানা যারা চালাচ্ছে, বছরের পর বছর ধরে তারাও নিজেদের ধার্মিক বলে প্রচার করে। এদের হোতা সরকারি দলের এক বড় নেতা। যেভাবে পাট শিল্প ধ্বংস করা হয়েছে, ঠিক সেই পথেই ধ্বংস করা হচ্ছে বাংলাদেশের ট্যানারি শিল্প। প্রশ্ন করবার কেউ নাই। জবাব দেওয়ার কেউ নাই’ বলেও জানান তিনি।

রিজভী বলেন, ‘বিএনপি সরকারের সময়ে এদেশে যে চামড়া কয়েক হাজার টাকায় বিক্রি হতো, এখন তা বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকায়। ৮০ হাজার টাকা দামের গরুর চামড়ার দাম এখন ২২০ টাকা! ১ লাখ টাকার গরুর চামড়া বিক্রি হয়েছে ২২৫ টাকায়। সব জিনিসের দাম হু হু করে বাড়লেও দফায় দফায় কমতে কমতে দশ ভাগের এক ভাগে নেমেছে গরিব-মিসকিনের হক এই কাঁচা চামড়ার দাম। এমন করুণ অবস্থা দেখে, নীরব প্রতিবাদ হিসেবে সিন্ডিকেটের কাছে বিক্রি না করে কোরবানির চামড়া মাটির নিচে পুঁতে রাখছেন অনেকে।’

ওবায়দুল কাদেরকে বোধ-বুদ্ধি শূন্য মন্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ‘মহাসড়কে প্রায় শত কিলোমিটারের দীর্ঘ যানজট আর ট্রেনের সিডিউল বিপর্যয়ে পড়ে মানুষ পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট করেছেন, তখন ওবায়দুল কাদের সাহেবকে আমরা বলতে শুনেছি, ‘‘বাংলাদেশের মানুষ ঈদযাত্রার দুর্ভোগকে দুর্ভোগ হিসেবে মনে করে না। এটা তারা ঈদ আনন্দের অংশ হিসেবে মনে করে।’’ কতটা স্বাভাবিক বোধ-বুদ্ধি শূন্য হলে একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী এমন উপহাসমূলক অবান্তর কথা বলতে পারেন।’

সড়ক ব্যবস্থায় এমন ব্যর্থতার পরও মন্ত্রী সাফাই গাচ্ছেন নিজের সাফল্যের, এই রকম নির্লজ্জতা দেশবাসী আগে কখনো দেখেনি বলেও মন্তব্য করেন রিজভী। বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘যতদিন আপনি সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আছেন, প্রতিটি ঈদে বাড়ি ফেরা মানুষের নাকের পানি চোখের পানি এক করে ছাড়ছেন। দয়া করে জনগণকে এবার নিস্তার দিন।’

advertisement