advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ধর্ষণ মামলার দুই আসামি নিহত

ভোলা সংবাদদাতা
১৫ আগস্ট ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৫ আগস্ট ২০১৯ ০০:০৮
advertisement

ঈদের আগের দিন সন্ধ্যায় প্রতিবেশীর ঘরে হাতে মেহেদি রাঙাতে যাওয়া স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার দুই আসামি কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। গত মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে দক্ষিণ রাজাপুরের জনতাবাজার এলাকায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তারা নিহত হন। তারা হলেনÑ সদর উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সৈয়দ আহম্মেদের ছেলে আল আমিন (২৭) ও কামাল মিস্ত্রির ছেলে মঞ্জুর আলম (২৫)।

জেলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, রাতে মেঘনার তীরে দুই দল জলদস্যুর মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশের টহল দল সেখানে যায়। টের পেয়ে জলদস্যুরা পুলিশের ওপর গুলি ছুড়ে। পুলিশ পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ দুটি লাশ পাওয়া যায়। লাশ দুটি হাসপাতালে নেওয়ার পর স্থানীয়রা তাদের শনাক্ত করে জানান, নিহতরা ধর্ষণ মামলার আসামি আমিন ও মঞ্জুর। লাশের পাশে দেশি বন্দুক ও কার্তুজও পাওয়া গেছে বলে জানান পুলিশ সুপার। তাদের বিরুদ্ধে থানায় মাদকসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি ছগির। সদর থানার ওসি ছগির মিয়া জানান, গত রবিবার সন্ধ্যায় ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী দুই বোন প্রতিবেশী এক নারীর কাছে হাতে মেহেদি রাঙাতে গেলে তাদের একজনকে কৌশলে ডেকে নিয়ে ওই দুজন মিলে ধর্ষণ করে।

পরে স্থানীয়রা মেয়েটিকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে। সে বর্তমানে বরিশাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনায় আল আমিন ও মঞ্জুর আলমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়।

advertisement