advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আমৃত্যু লড়াই করেছেন বঙ্গবন্ধু

নিজস্ব প্রতিবেদক
২১ আগস্ট ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২১ আগস্ট ২০১৯ ০০:৩৪
advertisement

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অন্যায়ের কাছে কখনো মাথা নত না করে অসীম সাহসিতার সঙ্গে নেতৃত্ব দিয়ে বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতা উপহার দিয়েছেন। তিনি জনগণের মুক্তি ও অধিকার আদায়ের প্রশ্নে আপোষহীন থেকে আমৃত্যু লড়াই সংগ্রাম করেছেন।’ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী

সমিতির শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে গতকাল পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

স্পিকার বলেন, ‘পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিটি প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে স্পষ্টতই প্রতীয়মান স্বাধীন বাংলার ইতিহাসের প্রাণ পুরুষ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যার নেতৃত্বে স্বাধীনতার ভিত রচনার মাধ্যমে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে বাংলাদেশের সংবিধান ভূলুণ্ঠিত হয়েছিল। এই নিকৃষ্টতম হত্যাকা-ের বিচারকার্য সম্পন্ন করার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতি কালো অধ্যায় থেকে মুক্ত হওয়ার সুযোগ পেয়েছে। যাদের বিচারের রায় কার্যকর করা যায়নি, তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচার বাস্তবায়ন করতে হবে।’

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু বারবার গ্রেপ্তার হয়েছেন, জেল-জুলুমের শিকার হয়েছেন। বাঙালির প্রতি তার ছিল অক্ষয় ভালবাসা। জনগণকে শোষণ ও বৈষম্য থেকে মুক্তি দিতেই আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। তিনি ফাঁসির মঞ্চে গিয়েও বাঙালির অধিকার আদায়ে সোচ্চার থেকেছেন।’

পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সভাপতি বিচারপতি এএফএম মেসবাহউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এএম আমিন উদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, স্বাচিপের সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সনাল প্রমুখ।

advertisement