advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

নায়করাজ রাজ্জাকের চলে যাওয়ার ২ বছর

বিনোদন প্রতিবেদক
২১ আগস্ট ২০১৯ ১১:৪৬ | আপডেট: ২১ আগস্ট ২০১৯ ১১:৪৬
advertisement

চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি অভিনেতা নায়করাজ রাজ্জাককে হারানোর দুই বছর আজ। ২০১৭ সালের ২১ আগস্ট অগণিত ভক্তকে চোখের জলে ভাসিয়ে পরপারে চলে যান বাংলা চলচ্চিত্রের বরেণ্য এই অভিনেতা।

তার মৃত্যুবার্ষিকীতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি, পরিচালক সমিতি, প্রযোজক পরিবেশক সমিতির পক্ষ থেকে নায়করাজের স্মরণে দোয়া ও তার কবর জিয়ারত করা হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে, রাজ্জাকের মৃত্যুবার্ষিকীতে তার গুলশানের বাসায় বাদ জোহর দোয়া-মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। নায়করাজের ছোট ছেলে সম্রাট দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে বলেন, ‘বাবার মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে আজ জোহরের নামাজের পর বাসায় দোয়া-মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও তিনশ ফিটের রাস্তাসংলগ্ন আমাদের একটি এতিমখানা আছে। সেখানেও কোরআন খতম ও এতিম শিশুদের খাওনো হবে।’ বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন সম্রাট।

১৯৪২ সালে ২৩ জানুয়ারি কলকাতায় জন্মগ্রহন করেন নায়করাজ রাজ্জাক। চলচ্চিত্রের টানে ঢাকায় আসেন ১৯৬৪ সালে। জহির রায়হানের ‘বেহুলা’ চলচ্চিত্রে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে নিজের শক্ত অবস্থান গড়ে তোলেন রাজ্জাক। তাকে নায়করাজ উপাধি দিয়েছিলেন চলচ্চিত্র পত্রিকা চিত্রালীর সম্পাদক আহমদ জামান চৌধুরী। অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালক হিসেবেও বেশ খ্যাতি কুড়িয়েছেন রাজ্জাক।  

রাজ্জাক অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবির তালিকায় আছে- ‘স্লোগান’, ‘আমার জন্মভূমি’, ‘অতিথি’, ‘কে তুমি’, ‘স্বপ্ন দিয়ে ঘেরা’, ‘পলাতক’, ‘ঝড়ের পাখি’, ‘খেলাঘর’, ‘চোখের জলে’, ‘আলোর মিছিল’, ‘ভাইবোন’, ‘বাঁদী থেকে বেগম’, ‘সাধু শয়তান’, ‘অনেক প্রেম অনেক জ্বালা’, ‘মায়ার বাঁধন’,  ‘গুণ্ডা’, ‘আগুন’, ‘মতিমহল’, ‘অমর প্রেম’, ‘যাদুর বাঁশী’, ‘অগ্নিশিখা’, ‘বন্ধু’, ‘অশিক্ষিত’, ‘সখি তুমি কার’, ‘নাগিন’, ‘লাইলী মজনু’, ‘রাম রহিম জন’, ‘বাবা কেন চাকর’ ইত্যাদি।

advertisement