advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দিনাজপুরে গৃহহীনদের জন্য ৪২২ ঘর নির্মাণ

রতন সিং, দিনাজপুর
২৪ আগস্ট ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৪ আগস্ট ২০১৯ ০১:১৪
advertisement

দিনাজপুরে সরকারি অর্থায়নে গৃহহীনদের জন্য দুর্যোগ সহনীয় ৪২২টি বসতঘর নির্মাণ করা হয়েছে। ১০ কোটি ৯১ লাখ টাকার এ প্রকল্পে অনিয়ম অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দিনাজপুর সমন্বিত দুদক জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমান জানান, সরকারি অর্থায়নে গত অর্থবছরে জেলার ১৩ উপজেলার অতিদরিদ্র ও গৃহহীনদের জন্য বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। এর আওতায় জেলায় ৪২২টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। ঘরগুলো নির্মাণে ১০ কোটি ৯১ লাখ ৮২ টাকা ব্যয় দেখানো হয়েছে। সরকারের ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দের মাধ্যমে তা পরিশোধ করা হয়েছে। প্রত্যেকটি বাড়ি নির্মাণে ব্যয় দেখানো হয়েছে ২ লাখ ৫৮ হাজার ৫৩১ টাকা।

দুদকের এ কর্মকর্তা আরও জানান, ঘরগুলো গত ৩০ জুনের মধ্যে নির্মাণ করে সংশ্লিষ্ট উপজেলার গৃহহীনদের চিহ্নিত করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে হস্তান্তর করা হয়েছে। কিন্তু প্রকল্পের শিডিউল অনুযায়ী অবকাঠামো ও উপকরণ ব্যবহৃত হয়েছে কিনা এবং নির্মাণে আর্থিক কোনো অনিয়ম হয়েছে কিনা, তা অনুসন্ধানে দুদকের পাঁচ সদস্যের একটি টিম গঠন করা হয়েছে।

তিনি জানান, গঠিত টিম বৃহস্পতিবার কার্যক্রম শুরু করে। তারা জেলায় ১৩ উপজেলায় পর্যায়ক্রমে অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা করবে। তদন্ত টিমের অনুসন্ধান শেষে তারা একটি প্রতিবেদন দুদক কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পেশ করবে। যদি কোনো অনিয়ম হয় সে ক্ষেত্রে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্রটি জানায়, এ প্রকল্পের কাজসংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তার সমন্বয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সম্পন্ন করা হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোকলেসুর রহমান জানান, গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে জেলার ১৩ উপজেলায় ৪২২টি বাড়ি নির্মাণের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। সদর উপজেলায় ২৩টি, বিরলে ৩৩, বোচাগঞ্জে ৩২, কাহারোলে ৩৬, বীরগঞ্জে ৩৭, খানসামায় ৩৯, চিরিরবন্দরে ৩৩, পার্বতীপুরে ৩৩, ফুলবাড়ীতে ২৮, বিরামপুরে ৩০, নবাবগঞ্জে ৩২, হাকিমপুরে ৩২ ও ঘোড়াঘাট উপজেলায় ৩৪টি বাড়ি প্রকল্পের আওতাভুক্ত ছিল।

advertisement