advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কাশ্মীরে যেতে বাধার মুখে রাহুল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ আগস্ট ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ আগস্ট ২০১৯ ০০:৩৯
advertisement

জম্মু-কাশ্মীরের প্রশাসন কংগ্রেসের সাবেক সভাপতি রাহুল গান্ধী ও তার সফরসঙ্গীদের কাশ্মীরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। গতকাল শনিবার কাশ্মীর পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে যাওয়া প্রতিনিধি দলকে দিল্লিতে ফেরত পাঠানো হয়। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরে বিশেষ মর্যাদা বাতিলের পর থেকে সেখানে কোনো রাজনৈতিক নেতাকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। কংগ্রেস নেতার সঙ্গে অন্যান্য বিরোধী দলের নেতৃবৃন্দও ছিলেন। তাদের মধ্যে গোলাম নবী আজাদ, ডি রাজা, শারদ যাদব, মনোজ ঝা, মাজিদ মেমন উল্লেখযোগ্য। তাদের বহনকারী বিমানটি শ্রীনগর বিমানবন্দরে পৌঁছার পর অল্প কিছুক্ষণের মধ্যেই তাদের আবার দিল্লিতে ফেরত পাঠানো হয়। রাজ্যসভার বিরোধী নেতা গোলাম নবী আজাদকে এ নিয়ে দুবার কাশ্মীরে প্রবেশে বাধা দেওয়া হলো। কংগ্রেস নেতা গোলাম নবী আজাদ বলেন, এটি সরকারের নীতির সঙ্গে সাংঘর্ষিক। সরকার যখন বলছে, কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক তা হলে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না কেন?

এ পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক নেতাদের কাশ্মীর সফর করা উচিত হবে না বলে এক টুইটে পরামর্শ দিয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীর ইনফরমেশন অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন অধিদপ্তর। তিনি বলেন, সরকার যখন জম্মু-কাশ্মীরের জনগণকে সীমান্তের ওপার থেকে আসা হামলা থেকে সুরক্ষার চেষ্টা করছেন, এই সময়ে রাজনৈতিক নেতাদের শ্রীনগর সফর করা উচিত হবে না। কারণ তাতে লোকজন অসুবিধায় পড়বেন।

এর আগে রাহুলকে জম্মু ও কাশ্মীরের গভর্নর সত্য পাল মালিক গত ১১ আগস্ট পরিস্থিতি নিজ চোখে দেখতে কাশ্মীর সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। তখন তিনি রাহুলের জন্য কেন্দ্র থেকে দেওয়া উড়োজাহাজ পাঠাতেও চেয়েছিলেন। গভর্নরের আমন্ত্রণ পাওয়ার দুদিন পর রাহুল তা গ্রহণ করেন। কিন্তু ততক্ষণে গভর্নর তার মত বদলে আমন্ত্রণ প্রত্যাহার করেন এবং রাহুলের ভ্রমণের ওপর শর্তারোপ করেন।

ভারত আগুন নিয়ে খেলছে : পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি বলেছেন, ভারত যে আগুন নিয়ে খেলছে, সেই আগুনে ভারত নামের রাষ্ট্রটির ধর্মনিরপেক্ষতাও পুড়ে যাবে। ডন।

advertisement
Evall
advertisement