advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মহাকাশে ‘প্রথম’ অপরাধ তদন্ত করছে নাসা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৫ আগস্ট ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৫ আগস্ট ২০১৯ ০৯:২৪
advertisement

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা সম্ভবত মহাকাশে ঘটে যাওয়া প্রথম অপরাধের এক অভিযোগে তদন্ত শুরু করেছে। অভিযোগ উঠেছে, একজন নভোচারী মহাশূন্য থেকে পৃথিবীতে তার এক সাবেক জীবনসঙ্গীর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে বেআইনিভাবে ঢুকে পড়েছেন।

নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, মহাকাশচারী অ্যানি ম্যাক্লেইন আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন (আইএসএস) থেকে ওই অ্যাকাউন্টে ঢোকার কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু তার দাবি, এর মাধ্যমে কোনো আইন ভঙ্গ হয়নি। তার জীবনসঙ্গী সামার ওর্ডেন মার্কিন ফেডারেল ট্রেড কমিশনের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনার পর ম্যাক্লেইন পৃথিবীতে ফিরে এসেছেন।

তার আইনজীবীর মাধ্যমে তিনি নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেছেন, তিনি মহাকাশ থেকে ওয়ার্ডেনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে দেখতে চেয়েছেন যে সেখানে সংসার এবং তাদের সন্তানের পেছনে খরচের জন্য যথেষ্ট টাকা-পয়সা রয়েছে কিনা। ম্যাক্লেইন এবং মার্কিন বিমানবাহিনী গোয়েন্দা কর্মকর্তা ওয়ার্ডেন সমকামী দম্পতি। এ দুই নারী ২০১৪ সালে বিয়ে করেন। কিন্তু ২০১৮ সালে ওয়ার্ডেন বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা করেন।

ম্যাক্লেইন মার্কিন সামরিক অ্যাকাডেমি ওয়েস্ট পয়েন্টের গ্র্যাজুয়েট। পাস করার পর সেনাবাহিনীর পাইলট হিসেবে তিনি ইরাকে ৮০০ ঘণ্টা যুদ্ধকালীন দায়িত্ব পালন করেন। এর পর তিনি টেস্ট পাইলট হন এবং ২০১৩ সালে তিনি নাসার পাইলট পদের জন্য নির্বাচিত হন। তিনি ছয় মাস আইএসএসে অবস্থান করেন।

আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের মালিকানা পাঁচটি দেশের- যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ইউরোপ, জাপান এবং কানাডা। মহাশূন্যে যে কোনো মহাকাশচারী এবং যন্ত্রপাতির ওপর এই দেশগুলোর নিজস্ব আইন কার্যকর হবে বলে আইনি কাঠামো তৈরি করা হয়েছে।

মহাকাশ থেকে অপরাধী প্রত্যর্পণের বিধানও রয়েছে। অপর কোনো দেশের নাগরিক মহাশূন্যে অপরাধ করলে দ্বিতীয় কোনো দেশ তাকে ফেরত চাইতে পারবে।

advertisement
Evall
advertisement