advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

৫ সপ্তাহ পার্লামেন্ট বন্ধ রাখতে চান বরিস জনসন

অনলাইন ডেস্ক
২৫ আগস্ট ২০১৯ ২১:৪৭ | আপডেট: ২৬ আগস্ট ২০১৯ ০১:০২
advertisement

ব্রেক্সিটকে সামনে রেখে পাঁচ সপ্তাহের জন্য পার্লামেন্ট বন্ধ রাখতে চান যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। গতকাল রোববার ফাঁস হওয়া এক ইমেইলের বরাতে এ খবর প্রকাশ জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

প্রধানমন্ত্রী অফিসের একজন ঊর্ধ্বতন উপদেষ্টা ১০ দিনের মধ্যে ইমেলটি অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে পাঠান। ওই ইমেইলে প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্যের অ্যাটর্নি জেনারেলের কাছে জানতে চেয়েছেন, ৯ সেপ্টেম্বর থেকে পাঁচ সপ্তাহের জন্য পার্লামেন্ট বন্ধ রাখা আইনানুগ ভাবে সম্ভব কি না?

যদিও প্রাথমিকভাবে বরিস জনসনের মুখপাত্রকে অবজারভারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, তিনি জানান বিষয়টি পুরোপুরিই ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা।

গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়, ওই ইমেইলের জবাবে পাঠানো আরেকটি ইমেইলে বলা হয়েছে পাঁচ সপ্তাহ পার্লামেন্ট বন্ধ রাখা সম্ভব, যদি এই উদ্যোগের সঙ্গে আদালতের কোনো দ্বিমত না থাকে।

সংসদ সদস্যরা ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের বিরুদ্ধে তাদের আন্তঃদলীয় প্রচারণা শুরু করার পর সরকারের এই মনোভাবের বিষয়টি গণমাধ্যমে আসলো। অক্টোবরের ৩১ তারিখে ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাবার কথা রয়েছে।

এ খবরের প্রতিক্রিয়ায় শ্যাডো ব্রেক্সিট সেক্রেটারি কেইর স্টারমার বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর এ ধরনের উদ্যোগ অবশ্যই বন্ধ করা উচিত।’

লিভারপুল থেকে নির্বাচিত স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য লুসিয়ানা বার্জার বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যেন কোনো কিছু ভুলে না যান, সেজন্যই ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত প্রতিদিনই পার্লামেন্ট বসা দরকার।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এবং তার দল যদি ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের জন্য পাঁচ সপ্তাহ ধরে পার্লামেন্ট বন্ধ রাখেন। তবে আমাদের স্নগসদীয় গণতন্ত্রের ইতিহাসে এর চেয়ে ন্যাক্কারজনক আর কোনো ঘটনা থাকবে না।’

advertisement