advertisement
Azuba
advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ফ্রেঞ্চফ্রাই-চিপসে আসক্তি, দৃষ্টিশক্তি হারাল কিশোর!

অনলাইন ডেস্ক
৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১২:০৮ | আপডেট: ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১২:০৮
প্রতীকী ছবি
advertisement

ছোটবেলা থেকেই চিপস আর ফ্রেঞ্চ ফ্রাইয়ের প্রতি আসক্তি ছিল ছেলেটির। প্রাথমিকের গণ্ডি পেরোনোর পর এর মাত্রা আরও বেড়ে যায়। তবে এসব খাবারে অভ্যস্ত হওয়ার পর এক পর্যায়ে অন্য কোনো খাবার খেতে পারতো না সে। এসব খাবার খাওয়ার কারণে ছেলেটি যে রোগা-পাতলা এমনটিও দেখা যায়নি কখনো। ফলে প্রথমদিকে সমস্যাটা তেমন বোঝা যায়নি। কিন্তু দীর্ঘদিনের এই অনিয়ম, অপুষ্টি ক্রমশ তার দৃষ্টিশক্তিতে ভর করেছিল। 

ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমের শহর ব্রিস্টলের ওই কিশোর এখন আর চোখে খুব ভালো দেখতে পায় না। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, দীর্ঘ দিনের অনিয়ম আর অপুষ্টির কারণে এ অবস্থা তৈরি হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, স্থানীয় চক্ষু চিকিৎসকদের দেখানোর পর ওই কিশোরকে ব্রিস্টল চক্ষু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।  

হাসপাতালের চিকিৎসক ডানাইজ আতান জানান, ভিটামিন লেভেল পরীক্ষা করে কিশোরের শরীরে ভিটামিন বি-১২, ভিটামিন-ডি, কপার, সেলেনিয়ামসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিন এবং খনিজ দ্রব্যের ঘাটতির প্রমাণ মিলেছে। দীর্ঘদিন ধরে মারাত্মক অপুষ্টিজনিত সমস্যায় ভুগছিল সে। 

শুধু তাই নয়, ওই কিশোরের হাড়ে খনিজের পরিমাণ আশঙ্কাজনক হারে কমে গিয়েছে। ড. আতান জানান, এই অসুখের নাম ‘নিউট্রিশনাল অপটিক নিউরোপ্যাথি’। প্রাথমিক পর্যায় ধরা পড়লে চিকিৎসার মাধ্যমে এ রোগের নিরাময় সম্ভব।

স্বাস্থ্য বিষয়ক বিখ্যাত মার্কিন পত্রিকা ‘অ্যানালস অব ইন্টারনাল মেডিসিন’ ব্রিস্টলের এই কিশোরের ঘটনার উল্লেখ করা হয়েছে। পত্রিকায় এই প্রসঙ্গে প্রকাশিত প্রবন্ধে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, দীর্ঘদিনের অনিয়ম, অপুষ্টির কারণেই ‘নিউট্রিশনাল অপটিক নিউরোপ্যাথি’ রোগের জন্য দায়ী।  এই কিশোরও একই কারণে দৃষ্টিশক্তি হারাতে বসেছে।

তাদের মতে, অপুষ্টির হাত থেকে বাঁচতে প্রতিদিন সুষম আহারের মাধ্যমে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ও খনিজ গ্রহণ করা জরুরি। মাল্টি ভিটামিন ট্যাবলেট বা ওষুধ খেয়ে সুষম আহারের সমতুল্য পুষ্টি পাওয়া সম্ভব নয়।  তাদের মতে, অবৈজ্ঞানিক এবং অনিয়ন্ত্রিত ডায়েট অন্ধত্ব ছাড়াও অ্যালার্জি, অটিজমসহ একাধিক রোগের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখুন পুষ্টিকর, ভিটামিন, খনিজ সমৃদ্ধ খাবার। 

advertisement