advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

২ ওভার পরেই বৃষ্টির হানা

স্পোর্টস ডেস্ক
৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৩:২৩ | আপডেট: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৬:২৫
ছবি : রতন গোমেজ, বিসিবি
advertisement

দুপুর ১টায় খেলা শুরু হওয়ার দুই ওভার পরই ঝুম বৃষ্টি নেমেছে চট্টগ্রামে। এরমধ্যে বাংলাদেশ স্কোর বোর্ডে যোগ করলো মাত্র সাত রান।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ছয় উইকেট হারিয়ে ৪৬ ওভার তিন বলে ১৪৩ রান। ক্রিজে আছেন সাকিব আল হাসান ৪৪ ও সৌম্য সরকার ২ রানে।

খেলা শুরুর সময় ঘোষণা

চট্টগ্রামে বৃষ্টি থামার পর মাঠও প্রস্তুত করা হয় খেলার জন্য। এর মধ্যে তখন আর যদি বৃষ্টি না হওয়ায় দুপুর ১টায় খেলা শুরুর ঘোষণা দিয়েছিলেন আম্পায়ার।

প্রথম সেশন ভেসে গেছে বৃষ্টিতে। কমপক্ষে ৬৩ ওভার খেলা হবে। দ্বিতীয় সেশন দুপুর ১টা থেকে ৩টা ১০ মিনিট পর্যন্ত। মাঝে ২০ মিনিট চা বিরতির পর ৩টা ৩০ মিনিট থেকে শুরু হবে তৃতীয় সেশন। চলবে ৫টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত।

বৃষ্টিই খেলছে বাংলাদেশের হয়ে

আফগানিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের এটি তিন নম্বর টেস্ট। অথচ চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সাকিব-মুশফিকদের বিপক্ষে আফগানরা যেভাবে খেলছেন, তা বোঝা বড় দায়। ব্যাট হাতে দুর্দান্ত খেলার পর বল হাতেও তারা সফল। টাইগারদের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ম্যাচে জয় থেকে মাত্র চার উইকেট দূরে আছেন রশিদ-নবীরা। সাকিব-মুশফিকরা খেলতে না পারলেও বৃষ্টি খেলছে বাংলাদেশের হয়ে। গতকাল অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও বলেছিলেন, বৃষ্টিই তাদের বাঁচাতে পারে।

গতকাল রোববার চতুর্থদিনও সকাল থেকে বৃষ্টি ছিল। মাঝে শুরু হলেও বৃষ্টির কারণে শেষ দিকে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। আজ সোমবারও শেষ দিন বৃষ্টির জন্য খেলা শুরু হচ্ছে না। সকাল থেকেই মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। ৩৯৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বাংলাদেশের সংগ্রহ ছয় উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান। জয়ের জন্য এখনো প্রয়োজন ২৬২ রান। ক্রিজে আছেন সাকিব আল হাসান ৩৯ ও সৌম্য সরকার শূন্য রানে। বৃষ্টির কারণে খেলা এখনো বন্ধ রয়েছে।'

গতকাল এই ম্যাচ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে সাকিব আল হাসান বলেন, ‘রান কত দরকার? ২৭০ (আসলে ২৬২)। একজনের ১৫০ ও একজনের ১২০ করলে মোটামুটি ঠিক আছে। দুনিয়াতে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়, দেখা যাক না কী হয়। আরেকটা আছে, বৃষ্টি এখন আমাদেরকে বাঁচাতে পারে। বেশ কয়েকটা ওয়ে আছে, দেখা যাক কী হয়।’

দুই ইনিংসেই দুর্দান্ত ব্যাটিং করে আফগানিস্তান। সাকিব-মুশফিকদের জিততে হলে পার হতে হবে ৩৯৮ রানের পাহাড়। গড়তে হবে নতুন বিশ্বরেকর্ড। টেস্ট ক্রিকেটে এর আগে ৩৯৭ রানের বেশি তাড়া করে জয়ের ঘটনা মাত্র চারবার ঘটেছে।

বাংলাদেশকে এই রানের পাহাড় টপকে জিততে হলে রেকর্ড গড়তে হবে। এর আগে কখনো ২১৫ রানের বেশি তাড়া করে জিততে পারেনি টাইগাররা।

 

advertisement