advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আফগানদের কাছে হেরে যা বললেন সাকিব

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৯:০৩ | আপডেট: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৯:১১
আফগানদের বিপক্ষে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন জাতীয় দলের (টেস্ট) অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।
advertisement

আরেকটি লজ্জার হার বাংলাদেশ ক্রিকেট টেস্ট দলের। এক বছর বয়সী আফগান টেস্ট দলের কাছে যেভাবে হেরেছে ১৯ বছর বয়সী টাইগার টেস্ট টিম, এর কোনো ব্যাক্ষা থাকে না। অন্তত সাকিব আল হাসানের দলের নয়।

স্পিন নির্ভর দল নিয়ে খেলতে নেমে পুঁচকে আফগানদের বিপক্ষে হেরে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিবের ভাষ্য, ‘আমার মনে হয় ছেলেরা অনেকদিন ধরে টেস্টের বাইরে, এটা খারাপ খেলার অন্যতম কারণ হতে পারে।’

অবশ্য, গুরুগম্ভীরভাবে কৃতিত্বটা আফগানিস্তানের দিকেই ঠেলেছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার। বলেছেন, ‘আফগানিস্তানের কৃতিত্ব সব। ওরা আমাদের চাপে রেখেছে এবং জয় তুলে নিয়েছে। তবে একই সঙ্গে আমাদের আরও পরিশ্রম করতে হবে।’

লজ্জার এই হারের বর্ণনা করে সাকিব বলেন, ‘আমরা সব কিছু সঠিক ভাবে প্রয়োগ করতে পারিনি, কৃতিত্ব দিতেই হবে আফগানিস্তানকে। তাদের এই জয়টা প্রাপ্য ছিল। তারা দারুণ বোলিং করেছে। পুরো টেস্ট ম্যাচ জুড়েই তারা আমাদের সঙ্গে দাপট দেখিয়েছে। আমাদের আরও অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হবে টেস্ট ক্রিকেটে ধারবাহিক দল হতে হলে।’

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টেস্ট ক্রিকেটের নবাগত দল আফগানিস্তানের কাছে ২২৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরে মাঠ ছাড়ে টাইগাররা। এখন পর্যন্ত খেলায় তিন টেস্টের মধ্যে দুটিতেই জয় পেয়েছে আফগানিস্তান।

বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া এই টেস্ট পঞ্চম দিনের শেষ সেশন পর্যন্ত গড়িয়েছে বৃষ্টির কল্যাণে। নাহয় গতকাল চতুর্থ দিনই ফলাফল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। আজ বৃষ্টির লুকোচুরিতে অনেকে ভেবেই নিয়েছিলেন খেলা ড্রতেই গড়াবে। কিন্তু শেষ দিকের নাটকীয়তায় তা আর হলো না।

আফগানরা ব্যাট-বল হাতে খেলেছেন দুর্দান্ত। অন্যদিকে বাংলাদেশের অবস্থা ছিল ভঙ্গুর। রশিদ-নবীরা প্রথম ইনিংসে ৩৪২ রেকর্ড রানের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও পার হয়েছেন আড়াইশ (২৬০)। অন্যদিকে বাংলাদেশের ২০০ করতেই কষ্ট হয়ে গেছে।

প্রথম ইনিংসে ২০৫ রান করলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ১৮০ রানও করতে পারেননি সাকিবরা। এই ম্যাচ দিয়ে সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হয়েছে রশিদ খানের। ১১টি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে তিনি একাই ধসিয়ে দিয়েছেন। প্রথম ইনিংসে ব্যাট হাতে করেছিলেন অর্ধশতকও।

এই টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর ৫২। মুমিনুল হকের ব্যাট থেকে তা আসে প্রথম ইনিংসে। এ ছাড়া আর কোনো ব্যাটসম্যানই হাফসেঞ্চুরির মুখ দেখেননি। দ্বিতীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪৪ রান আসে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ছয় উইকেট নেন তাইজুল ইসলাম।

advertisement